PDA

View Full Version : Just met Shakib Al Hassan in Glasgow


patriot
July 17, 2010, 12:18 PM
He was walking along Buchanan Street all alone . I spotted him from quite some distance and at first I couldn't believe it was him. Once I got closer , I realized it was our Shakibba.

He was so down to earth , friendly and was up for a casual conversation. He was happy he got runs in Ireland and hopes to score more than that against Scotland and Netherlands. He rejected my dinner Invitation though . May be he thought I was some bookie. :)

Coincidentally , I had met Shahid Afridi and Abdur Razzak before on the same street . They were arrogant and carried loads of attitude.

Anyone from Scotland going for the matches , please Lemme Know . We could go together.

Murad
July 17, 2010, 12:29 PM
Abdur Razzak is arrogant? Hard to believe it. I heard is a very friendly guy.

I hope you are talking about Pakistan's Abdul Razzak.

patriot
July 17, 2010, 12:54 PM
I hope you are talking about Pakistan's Abdul Razzak.

Yes , I was referring to the Pakistani Abdul Razaak.

auntu
July 17, 2010, 01:27 PM
Great one Patriot. :)
Please present at the ground and give us inside news of the match.
It would be a great read for all of us.

Rifat
July 17, 2010, 02:36 PM
this is very nice and encouraging to hear...:)


thank you for sharing Patriot, you have lived up to your name ;)

al Furqaan
July 17, 2010, 02:43 PM
i too have met shakib in person...extremely down to earth. he has the hearth of a kid.

ashraful seems to think he's hot ****...course the one time i met him he was on fire (right before that zimbabwe 103*).

Rumz_01
July 17, 2010, 03:05 PM
i too have met shakib in person...extremely down to earth. he has the hearth of a kid.

ashraful seems to think he's hot ****...course the one time i met him he was on fire (right before that zimbabwe 103*).

lol! His mind seems to go crazy when he sees cameras.. it was really funny... he was just randomly striking poses with the cheesiest grins ever!

MohammedC
July 17, 2010, 03:24 PM
Patriot bhai nice to hear from you. Please keep us updated during the match
<br />Posted via BC Mobile Edition (iPhone)

chotpoti
July 17, 2010, 03:42 PM
thnks a lot patriot bro for sharing

Tiger-ess
July 17, 2010, 07:32 PM
Nice one patriot :) I remember Shak was really nice too when I spoke to him not so long ago!

one question though, I saw Shahid Afridi at lords yesterday whats he doing in glasgow so quick ??

My uncle saw Umer Akmal in westfield shopping centre today!!

Antora
July 17, 2010, 08:44 PM
umm...I'm jelous...

SS
July 17, 2010, 09:01 PM
Did you just chat or ask him any plan he is taking for him to regain the form and how the team is getting ready for next year's big event

Zeeshan
July 17, 2010, 10:43 PM
Coincidentally , I had met Shahid Afridi and Abdur Razzak before on the same street . They were arrogant and carried loads of attitude.

May be that's exactly what's missing in our players. S~W~A~G~G~E~R. You need to have certain amount of cockiness if you wanna shine. 100 in 37 surely gives one right to think he is far above the mortals. Lol @ everyone in this thread getting all swoony cuz of his down-to-earth attitude.

Bancan
July 17, 2010, 10:48 PM
eff down to earth. You gotta have the attitude of a superstar.

bujhee kom
July 17, 2010, 11:16 PM
Ohh that is awesome Patriot bhai, bolchen ki apni! Did you give him a big hug? And did you try to keep something from him like a shirt button or somehting or maybe a little lock of hair, that would have been great! Did he look hungry? Was he looking for a Curry house?

al-Sagar
July 18, 2010, 12:30 AM
Ohh that is awesome Patriot bhai, bolchen ki apni! Did you give him a big hug? And did you try to keep something from him like a shirt button or somehting or maybe a little lock of hair, that would have been great! Did he look hungry? Was he looking for a Curry house?

shakib was looking for jamity jam and chotpoti

BANFAN
July 18, 2010, 12:43 AM
You met and you never asked him a question on captaincy, coach, loss to IRE & what's happening in the team? Why the are losing continuously to anyone and everyone? Do thay at all play for winning or still play to just achieve 200+ scores....... Well you must have been over whelmed seeing him.

shabbir
July 18, 2010, 02:14 AM
Guys just read todays somokal what they have written about sakib,him captaincy
ক্রীড়া প্রতিবেদক : জুলাই ২০০৯। মাশরাফি বিন মর্তুজাকে অধিনায়ক আর সাকিব আল হাসানকে ডেপুটি করে ঘোষণা করা হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাংলাদেশ দল। সেন্ট ভিনসেন্টে সিরিজের প্রথম টেস্টে সপ্তম ওভারের বোলিং করতে গিয়েই ইনজুরিতে মাশরাফি। অধিনায়কের পদবি সেই থেকেই সাকিব আল হাসানের কাছে। মাশরাফি ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরলেও সাকিবকেই রাখা হয়েছিল দায়িত্বে। তাকে দায়িত্ব ফিরিয়ে দেওয়া হবে কি হবে না, এমন প্রশ্নে দ্বিধায় ছিলেন বিসিবির কর্মকর্তারাও। সর্বশেষ টি২০ বিশ্বকাপ শেষে প্রথম দফায় ইংল্যান্ড সফর পর্যন্তও সেই দ্বিধা কাটেনি বোর্ড কর্মকর্তাদের। এরপর ওয়ানডে সিরিজ খেলতে দ্বিতীয় দফা ইংল্যান্ড সফর। দ্বিধা কেটে এবার অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফিকে পুনর্বহাল। মাশরাফিকে অধিনায়কের ঘোষণা দেওয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হলো, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষে কাউন্টি ক্রিকেট খেলতে ওস্টারশায়ারে যোগ দেবেন সাকিব। আয়ারল্যান্ড, স্কটল্যান্ড ও হল্যান্ডের সঙ্গে সফরের চারটি এক দিনের ম্যাচে তিনি থাকবেন না দলের সঙ্গে। সে কারণেই সিরিজের প্রথম থেকে মাশরাফিকে অধিনায়ক করে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বোর্ডের এমন কথা শতভাগ সত্য নয়। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেও বাংলাদেশ দলে ছিলেন সাকিব, থাকছেন স্কটল্যান্ড ও হল্যান্ডের বিপক্ষে ১৯ ও ২০ জুলাইয়ে দুটি ম্যাচে। এরপর বাংলাদেশ দল দেশে ফিরবে আর সাকিব যোগ দেবেন ওস্টারশায়ারের ক্যাম্পে। এসব খবরের সত্যতা স্বীকার করে বোর্ডের পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস সংবাদমাধ্যমে জানান, সাকিব নিজেই অধিনায়কের পদ থেকে আপাতত বিশ্রাম চেয়েছিলেন। পুরো সফরেই তিনি দলের সঙ্গে থাকবেন বলেও জানান এই বোর্ড পরিচালক। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের মাত্র আট মাস আগে কেন এমন আকস্মিক সিদ্ধান্ত, কেনইবা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাকিব ও কাউন্টি ক্রিকেটের প্রসঙ্গ টেনে এহেন বিভ্রান্তি ছড়ানো। এ নিয়ে যোগাযোগ করা হয়েছিল বোর্ড সংশ্লিষ্ট নানা পক্ষের সঙ্গে। তাদের সঙ্গে আলোচনা থেকে পাওয়া তথ্যগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা গেল, সাকিবকে অধিনায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার নেপথ্যে রয়েছে নানা কারণ। সেসব কারণের ওপর ভিত্তি করেই সমকালের পাঠকদের জন্য এ প্রতিবেদন।
হ মাশরাফি-সাকিব সম্পর্ক
ইনজুরি থেকে সেরে উঠে মাশরাফির দলে ফেরা নিয়ে তৈরি বিতর্কে সাকিবের ভূমিকা ছিল নেতিবাচক। আচরণ ছিল ঔদ্ধত্যপূর্ণ। ফলে সাকিবের অধীনে খেলতে প্রস্তুত থাকার পরও দেশসেরা এ পেসারের দলে ফেরা হয়ে পড়ে কঠিন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে দলে ফিরলেও দ্বিতীয় ম্যাচে তাকে দলের বাইরে রাখা হয়। সাকিব আর সিডন্সের এমন যৌথ সিদ্ধান্তে মাশরাফির সঙ্গে কোনো আলোচনাই করা হয়নি। এ নিয়ে বিবাদে মাশরাফি হোটেল ছেড়ে বাসায় চলে আসেন। মিডিয়ায় এ খবর প্রকাশ হলে সাকিব সরাসরি জানিয়ে দেন, কে দলে থাকবে কে থাকবে না, তা জানাতে তিনি বাধ্য নন। কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে তৃতীয় ম্যাচে মাশরাফি দলে ফিরতে চাইলেও সাকিবের কারণে তা শেষ পর্যন্ত হয়ে ওঠেনি। এরপর নিজেকে দলে অপ্রয়োজনীয় মনে করে মিথ্যা এক অজুহাত দেখিয়ে মাশরাফি নিজেকে দল থেকে প্রত্যাহার করে নেন।
হ বিসিবির সমালোচনায় সাকিব
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজে রিভিউ সিস্টেমের ব্যবস্থা না করার জন্য প্রকাশ্যে বিসিবির সমালোচনা করেন দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। সংবাদ সম্মেলনে সাকিব মন্তব্য করেছিলেন, আইসিসি সভাপতির বর্তমান সফরের পেছনে যে ব্যয় করা হচ্ছে, তা দিয়েই রিভিউ সিস্টেমের ব্যয় মেটানো সম্ভব ছিল। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারণেই সাকিবের এ ক্ষোভ প্রকাশটা থাকলেও, প্রকাশের ধরনে তুষ্ট ছিলেন না বোর্ড কর্মকর্তারা। দেশে তো বটেই বিদেশি মিডিয়াতেও সাকিবের এ হতাশার কথা ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়।
হ দলীয় পারফরম্যান্স
বোলার হিসেবে সাকিবের ফর্ম ভালো হলেও তার অধীনে বাংলাদেশ দল কোনো বড় সাফল্য পাচ্ছিল না। দেশে এবং বিদেশে দুটি করে সিরিজ ও একটি বিশ্বকাপ মিলিয়ে কোনো ধরনের ক্রিকেটেই গত ছয় মাসে জয় আসেনি বাংলাদেশের। বোর্ডের নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকা একটি পক্ষ সাকিবকে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণ হিসেবে জানালেন এ কথা।
হ সাকিবের ব্যাটিং পারফরম্যান্স
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অর্ধশতকবিহীন টেস্ট সিরিজ। নয়টি ওয়ানডে ম্যাচেও ছিল না কোনো ফিফটি। সাকিবের এমন ফর্মের কারণে দলের মিডল অর্ডার প্রায় ভেঙে পড়েছিল। বোলিংয়ে নিজের অবস্থান ধরে রাখলেও অধিনায়কত্বের চাপে নাকি ব্যাটিং ফর্ম হারিয়ে ফেলেছিলেন সাকিব। দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে এটিও ছিল বড় একটি কারণ।
হ সিনিয়রদের সঙ্গে অসদাচরণ
মাশরাফি ছাড়াও দলের একাধিক সিনিয়র ক্রিকেটার সাকিবের অধীনে খেলতে স্বস্তিবোধ করছিলেন না বলে তথ্য ছিল বোর্ড কর্মকর্তাদের কাছে। স্পিনার আবদুর রাজ্জাককে নিয়ে সাকিব প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এতে করে দলের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। রকিবুল হাসান নাটকীয়ভাবে দল থেকে পদত্যাগ করলেও সাকিবের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দেওয়া বক্তব্য ছিল কঠোর_ যা কি-না তাকে সতীর্থদের কাছে অজনপ্রিয় করে তুলেছিল।
হ শক্তিশালী ক্লাব লবিং
আবাহনীর টানা চতুর্থ লীগ শিরোপাটা হাতছাড়া হয়েছে দলের অধিনায়ক সাকিবের ছোট্ট এক ভুলে। সেদিন মাঠেই প্রকাশ্যে অধিনায়কের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন ক্লাবটির একাধিক কর্মকর্তা। মোহামেডানের সঙ্গে শিরোপার সেই লড়াইয়ে হেরে গিয়ে ক্ষিপ্ত ক্লাব কর্মকর্তারা তখন থেকেই নাকি সাকিবকে জাতীয় দলের অধিনায়ক থেকে সরিয়ে দিতে তৎপর ছিলেন সুযোগের অপেক্ষায়। সম্প্রতি জাতীয় দলে সাকিব তার নামের সঙ্গে সুবিচার করছিলেন না। বিশেষ করে তার ব্যাটিং পারফরম্যান্সটা বেশ কয়েক ম্যাচ ধরেই নিম্নগামী। সুযোগটাও কাজে লাগানো হয়েছে এমন সময়ই। এমন কারণের কথা জানালেন বোর্ডে থাকা আবাহনীবিরোধী শিবিরের কয়েক কর্মকর্তা।
হ বোর্ড সভাপতির সঙ্গে সম্পর্ক
গত জানুয়ারিতে ভারতের বিপক্ষে হোম সিরিজের সময় বোর্ড সভাপতির সঙ্গে প্রকাশ্যে বিবাদে জড়িয়ে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। জনসমর্থন সাকিবের পক্ষে থাকায় সে সময় সাকিবের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি। পরে সাকিব ক্ষমা প্রার্থনা করলেও তাতে নাকি বোর্ড সভাপতির ক্ষোভ মেটেনি বলেই ধারণা বোর্ডেরই একটি পক্ষের। তারই ফল সাকিবকে সরিয়ে দেওয়া_ এমনটি মনে করছেন ক্রিকেটাঙ্গনের অনেকেই।
হ আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সঙ্গে আচরণ অজ্ঞতা
লর্ডস টেস্ট শুরুর আগের দিন ম্যাচ পাতানো প্রসঙ্গে সাকিবের বক্তব্য সারা ক্রিকেট বিশ্বে আলোচনার ঝড় তোলে। বিসিবির কর্মকর্তারা মনে করতে শুরু করেন, বিষয়টি সাকিব ইচ্ছে করেই করেছেন এবং এমন কথার কোনো প্রয়োজনই ছিল না। এতে করে লর্ডস টেস্টে দলের পারফরম্যান্সেও প্রভাব পড়েছে বলে মন্তব্য করেন কর্মকর্তারা। এরপর ম্যাচ শেষে নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি না এসে কোচ জিমি সিডন্সকে পাঠানোর পরও নানা সমালোচনার মুখে পড়তে হয় তাকে।
হ উপদেশ মানতে অব্যাহত অপরাগতা
সাকিব নাকি সবসময় মনে করেন, তিনি যা ভাবছেন সেটিই সঠিক, সেটিই সেরা। মাঝে মধ্যে সেসব ভাবনা বুমেরাং হলেও তা নিয়ে তিনি ভাবতেন না। সতীর্থদের এমন গুরুতর অভিযোগ অধিনায়কের বিরুদ্ধে। চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাটিং পিচে টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত তার নাকি একার নেওয়া। এমন ভুল করেও সাকিব অনুতপ্ত ছিলেন না বলে জানালেন তারই এক সতীর্থ।
হ দলে গ্রুপিং, অন্তর্দ্বন্দ্ব
সাকিব সবসময়ই বলে বেড়ান দলে দুটি গ্রুপ, একটি হচ্ছে ব্যাটসম্যান, অন্যটি হচ্ছে বোলার; কিন্তু তার সতীর্থদের প্রায় সবাই বোর্ডসহ একাধিক মিডিয়া নাম না প্রকাশের শর্তে জানায়, সাকিবের নেতৃত্বে আস্থা নেই তাদের। দলে ঐক্য নেই। সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ_ তিনি তামিম, মুশফিক আর নাঈমের প্রতি যতটা নমনীয় ঠিক ততটাই কঠোর দলের অন্যদের প্রতি।
রেটিং দিন :

MohammedC
July 18, 2010, 02:58 AM
^^^ This interview starts talking for Shakib then changes its tune half way starts pointing all the wrong mistake he may have made last year since his captaincy.

al-Sagar
July 18, 2010, 03:21 AM
Guys just read todays somokal what they have written about sakib,him captaincy
ক্রীড়া প্রতিবেদক : জুলাই ২০০৯। মাশরাফি বিন মর্তুজাকে অধিনায়ক আর সাকিব আল হাসানকে ডেপুটি করে ঘোষণা করা হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাংলাদেশ দল। সেন্ট ভিনসেন্টে সিরিজের প্রথম টেস্টে সপ্তম ওভারের বোলিং করতে গিয়েই ইনজুরিতে মাশরাফি। অধিনায়কের পদবি সেই থেকেই সাকিব আল হাসানের কাছে। মাশরাফি ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরলেও সাকিবকেই রাখা হয়েছিল দায়িত্বে। তাকে দায়িত্ব ফিরিয়ে দেওয়া হবে কি হবে না, এমন প্রশ্নে দ্বিধায় ছিলেন বিসিবির কর্মকর্তারাও। সর্বশেষ টি২০ বিশ্বকাপ শেষে প্রথম দফায় ইংল্যান্ড সফর পর্যন্তও সেই দ্বিধা কাটেনি বোর্ড কর্মকর্তাদের। এরপর ওয়ানডে সিরিজ খেলতে দ্বিতীয় দফা ইংল্যান্ড সফর। দ্বিধা কেটে এবার অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফিকে পুনর্বহাল। মাশরাফিকে অধিনায়কের ঘোষণা দেওয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হলো, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষে কাউন্টি ক্রিকেট খেলতে ওস্টারশায়ারে যোগ দেবেন সাকিব। আয়ারল্যান্ড, স্কটল্যান্ড ও হল্যান্ডের সঙ্গে সফরের চারটি এক দিনের ম্যাচে তিনি থাকবেন না দলের সঙ্গে। সে কারণেই সিরিজের প্রথম থেকে মাশরাফিকে অধিনায়ক করে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বোর্ডের এমন কথা শতভাগ সত্য নয়। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেও বাংলাদেশ দলে ছিলেন সাকিব, থাকছেন স্কটল্যান্ড ও হল্যান্ডের বিপক্ষে ১৯ ও ২০ জুলাইয়ে দুটি ম্যাচে। এরপর বাংলাদেশ দল দেশে ফিরবে আর সাকিব যোগ দেবেন ওস্টারশায়ারের ক্যাম্পে। এসব খবরের সত্যতা স্বীকার করে বোর্ডের পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস সংবাদমাধ্যমে জানান, সাকিব নিজেই অধিনায়কের পদ থেকে আপাতত বিশ্রাম চেয়েছিলেন। পুরো সফরেই তিনি দলের সঙ্গে থাকবেন বলেও জানান এই বোর্ড পরিচালক। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের মাত্র আট মাস আগে কেন এমন আকস্মিক সিদ্ধান্ত, কেনইবা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাকিব ও কাউন্টি ক্রিকেটের প্রসঙ্গ টেনে এহেন বিভ্রান্তি ছড়ানো। এ নিয়ে যোগাযোগ করা হয়েছিল বোর্ড সংশ্লিষ্ট নানা পক্ষের সঙ্গে। তাদের সঙ্গে আলোচনা থেকে পাওয়া তথ্যগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা গেল, সাকিবকে অধিনায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার নেপথ্যে রয়েছে নানা কারণ। সেসব কারণের ওপর ভিত্তি করেই সমকালের পাঠকদের জন্য এ প্রতিবেদন।
হ মাশরাফি-সাকিব সম্পর্ক
ইনজুরি থেকে সেরে উঠে মাশরাফির দলে ফেরা নিয়ে তৈরি বিতর্কে সাকিবের ভূমিকা ছিল নেতিবাচক। আচরণ ছিল ঔদ্ধত্যপূর্ণ। ফলে সাকিবের অধীনে খেলতে প্রস্তুত থাকার পরও দেশসেরা এ পেসারের দলে ফেরা হয়ে পড়ে কঠিন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে দলে ফিরলেও দ্বিতীয় ম্যাচে তাকে দলের বাইরে রাখা হয়। সাকিব আর সিডন্সের এমন যৌথ সিদ্ধান্তে মাশরাফির সঙ্গে কোনো আলোচনাই করা হয়নি। এ নিয়ে বিবাদে মাশরাফি হোটেল ছেড়ে বাসায় চলে আসেন। মিডিয়ায় এ খবর প্রকাশ হলে সাকিব সরাসরি জানিয়ে দেন, কে দলে থাকবে কে থাকবে না, তা জানাতে তিনি বাধ্য নন। কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে তৃতীয় ম্যাচে মাশরাফি দলে ফিরতে চাইলেও সাকিবের কারণে তা শেষ পর্যন্ত হয়ে ওঠেনি। এরপর নিজেকে দলে অপ্রয়োজনীয় মনে করে মিথ্যা এক অজুহাত দেখিয়ে মাশরাফি নিজেকে দল থেকে প্রত্যাহার করে নেন।
হ বিসিবির সমালোচনায় সাকিব
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজে রিভিউ সিস্টেমের ব্যবস্থা না করার জন্য প্রকাশ্যে বিসিবির সমালোচনা করেন দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। সংবাদ সম্মেলনে সাকিব মন্তব্য করেছিলেন, আইসিসি সভাপতির বর্তমান সফরের পেছনে যে ব্যয় করা হচ্ছে, তা দিয়েই রিভিউ সিস্টেমের ব্যয় মেটানো সম্ভব ছিল। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারণেই সাকিবের এ ক্ষোভ প্রকাশটা থাকলেও, প্রকাশের ধরনে তুষ্ট ছিলেন না বোর্ড কর্মকর্তারা। দেশে তো বটেই বিদেশি মিডিয়াতেও সাকিবের এ হতাশার কথা ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়।
হ দলীয় পারফরম্যান্স
বোলার হিসেবে সাকিবের ফর্ম ভালো হলেও তার অধীনে বাংলাদেশ দল কোনো বড় সাফল্য পাচ্ছিল না। দেশে এবং বিদেশে দুটি করে সিরিজ ও একটি বিশ্বকাপ মিলিয়ে কোনো ধরনের ক্রিকেটেই গত ছয় মাসে জয় আসেনি বাংলাদেশের। বোর্ডের নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকা একটি পক্ষ সাকিবকে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণ হিসেবে জানালেন এ কথা।
হ সাকিবের ব্যাটিং পারফরম্যান্স
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অর্ধশতকবিহীন টেস্ট সিরিজ। নয়টি ওয়ানডে ম্যাচেও ছিল না কোনো ফিফটি। সাকিবের এমন ফর্মের কারণে দলের মিডল অর্ডার প্রায় ভেঙে পড়েছিল। বোলিংয়ে নিজের অবস্থান ধরে রাখলেও অধিনায়কত্বের চাপে নাকি ব্যাটিং ফর্ম হারিয়ে ফেলেছিলেন সাকিব। দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে এটিও ছিল বড় একটি কারণ।
হ সিনিয়রদের সঙ্গে অসদাচরণ
মাশরাফি ছাড়াও দলের একাধিক সিনিয়র ক্রিকেটার সাকিবের অধীনে খেলতে স্বস্তিবোধ করছিলেন না বলে তথ্য ছিল বোর্ড কর্মকর্তাদের কাছে। স্পিনার আবদুর রাজ্জাককে নিয়ে সাকিব প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এতে করে দলের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। রকিবুল হাসান নাটকীয়ভাবে দল থেকে পদত্যাগ করলেও সাকিবের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দেওয়া বক্তব্য ছিল কঠোর_ যা কি-না তাকে সতীর্থদের কাছে অজনপ্রিয় করে তুলেছিল।
হ শক্তিশালী ক্লাব লবিং
আবাহনীর টানা চতুর্থ লীগ শিরোপাটা হাতছাড়া হয়েছে দলের অধিনায়ক সাকিবের ছোট্ট এক ভুলে। সেদিন মাঠেই প্রকাশ্যে অধিনায়কের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন ক্লাবটির একাধিক কর্মকর্তা। মোহামেডানের সঙ্গে শিরোপার সেই লড়াইয়ে হেরে গিয়ে ক্ষিপ্ত ক্লাব কর্মকর্তারা তখন থেকেই নাকি সাকিবকে জাতীয় দলের অধিনায়ক থেকে সরিয়ে দিতে তৎপর ছিলেন সুযোগের অপেক্ষায়। সম্প্রতি জাতীয় দলে সাকিব তার নামের সঙ্গে সুবিচার করছিলেন না। বিশেষ করে তার ব্যাটিং পারফরম্যান্সটা বেশ কয়েক ম্যাচ ধরেই নিম্নগামী। সুযোগটাও কাজে লাগানো হয়েছে এমন সময়ই। এমন কারণের কথা জানালেন বোর্ডে থাকা আবাহনীবিরোধী শিবিরের কয়েক কর্মকর্তা।
হ বোর্ড সভাপতির সঙ্গে সম্পর্ক
গত জানুয়ারিতে ভারতের বিপক্ষে হোম সিরিজের সময় বোর্ড সভাপতির সঙ্গে প্রকাশ্যে বিবাদে জড়িয়ে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। জনসমর্থন সাকিবের পক্ষে থাকায় সে সময় সাকিবের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি। পরে সাকিব ক্ষমা প্রার্থনা করলেও তাতে নাকি বোর্ড সভাপতির ক্ষোভ মেটেনি বলেই ধারণা বোর্ডেরই একটি পক্ষের। তারই ফল সাকিবকে সরিয়ে দেওয়া_ এমনটি মনে করছেন ক্রিকেটাঙ্গনের অনেকেই।
হ আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সঙ্গে আচরণ অজ্ঞতা
লর্ডস টেস্ট শুরুর আগের দিন ম্যাচ পাতানো প্রসঙ্গে সাকিবের বক্তব্য সারা ক্রিকেট বিশ্বে আলোচনার ঝড় তোলে। বিসিবির কর্মকর্তারা মনে করতে শুরু করেন, বিষয়টি সাকিব ইচ্ছে করেই করেছেন এবং এমন কথার কোনো প্রয়োজনই ছিল না। এতে করে লর্ডস টেস্টে দলের পারফরম্যান্সেও প্রভাব পড়েছে বলে মন্তব্য করেন কর্মকর্তারা। এরপর ম্যাচ শেষে নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি না এসে কোচ জিমি সিডন্সকে পাঠানোর পরও নানা সমালোচনার মুখে পড়তে হয় তাকে।
হ উপদেশ মানতে অব্যাহত অপরাগতা
সাকিব নাকি সবসময় মনে করেন, তিনি যা ভাবছেন সেটিই সঠিক, সেটিই সেরা। মাঝে মধ্যে সেসব ভাবনা বুমেরাং হলেও তা নিয়ে তিনি ভাবতেন না। সতীর্থদের এমন গুরুতর অভিযোগ অধিনায়কের বিরুদ্ধে। চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাটিং পিচে টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত তার নাকি একার নেওয়া। এমন ভুল করেও সাকিব অনুতপ্ত ছিলেন না বলে জানালেন তারই এক সতীর্থ।
হ দলে গ্রুপিং, অন্তর্দ্বন্দ্ব
সাকিব সবসময়ই বলে বেড়ান দলে দুটি গ্রুপ, একটি হচ্ছে ব্যাটসম্যান, অন্যটি হচ্ছে বোলার; কিন্তু তার সতীর্থদের প্রায় সবাই বোর্ডসহ একাধিক মিডিয়া নাম না প্রকাশের শর্তে জানায়, সাকিবের নেতৃত্বে আস্থা নেই তাদের। দলে ঐক্য নেই। সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ_ তিনি তামিম, মুশফিক আর নাঈমের প্রতি যতটা নমনীয় ঠিক ততটাই কঠোর দলের অন্যদের প্রতি।
রেটিং দিন :

lol.

joto issue ana jay sob taine anse, reporter onekdin dhore shakib er upor rag jomay ansilo segulo jharse.

til ke tal bananor cheshta kora hoise.

Shocky
July 18, 2010, 03:21 AM
Shakib ashola ekta vodai r kisui na...ak hoilo morar JS tar upor vodai captain...ty amra 2010 a win ki sheita khuje paccilam na...bacca pola anekkisui bujhe na :o
<br />Posted via BC Mobile Edition

bangla-red
July 18, 2010, 04:21 AM
Nice one patriot :) I remember Shak was really nice too when I spoke to him not so long ago!

one question though, I saw Shahid Afridi at lords yesterday whats he doing in glasgow so quick ??

My uncle saw Umer Akmal in westfield shopping centre today!!

He's seen Afridi previously. I think that Afridi once represented Scotland in the (then) C&G trophy.

patriot
July 18, 2010, 06:04 AM
Nice one patriot :) I remember Shak was really nice too when I spoke to him not so long ago!

one question though, I saw Shahid Afridi at lords yesterday whats he doing in glasgow so quick ??
My uncle saw Umer Akmal in westfield shopping centre today!!
I met Afridi when he last came down here for a Ind-Pak match in 2008. The match later didn't happen cos of Rain.


Ohh that is awesome Patriot bhai, bolchen ki apni! Did you give him a big hug? And did you try to keep something from him like a shirt button or something or maybe a little lock of hair, that would have been great! Did he look hungry? Was he looking for a Curry house?

BK Bhai , Unfortunately I couldn't get a shirt button or a little lock of hair . What I did manage was a hand shake and I didn't wash that hand till now. He had his lunch in Radisson and was bored in the hotel room it seems , so hawa khaite beher hoise.

shakibrulz
July 18, 2010, 08:26 AM
May be that's exactly what's missing in our players. S~W~A~G~G~E~R. You need to have certain amount of cockiness if you wanna shine. 100 in 37 surely gives one right to think he is far above the mortals. Lol @ everyone in this thread getting all swoony cuz of his down-to-earth attitude.

That spells B.S.

Anyways Afretard is the last one you wanna make a role model :floor: He's the gloried Ash of Pakistani team.

And being cocky doesn't mean that they'll play with lotsa enthusiasm. It can be either ways. Sachin himself is the best example. :)

crikfreak
July 18, 2010, 08:56 AM
man..i'm jealous..i wanna meet him too...n mashrafe..more than anyone else... unluckily enuf..i have NEVER met or seen any cricketer in person..:(:(...... never even watched a match in the stadium...:(:(

btw patriot bhai..did u get his autograph?? or pix with him??? :P

cricket_king
July 18, 2010, 08:57 AM
That spells B.S.

Anyways Afretard is the last one you wanna make a role model :floor: He's the gloried Ash of Pakistani team.

And being cocky doesn't mean that they'll play with lotsa enthusiasm. It can be either ways. Sachin himself is the best example. :)

Exactly. Just because you're cocky doesn't necessarily mean you're a superstar. Afridi's batting is rather clownish in my opinion. He himself is pretty clownish, though I am surprised at his cocky attitude. A player who takes the time to have a casual chat to the fans will always be loved. Kuddos to Shakib. And for those who claim they'd rather a cocky attitude - seriously experience an interaction with a cocky player. It will just piss you off. Why would they be cocky to you? You're a fan, not a competitor.

crikfreak
July 18, 2010, 09:00 AM
Guys just read todays somokal what they have written about sakib,him captaincy
ক্রীড়া প্রতিবেদক : জুলাই ২০০৯। মাশরাফি বিন মর্তুজাকে অধিনায়ক আর সাকিব আল হাসানকে ডেপুটি করে ঘোষণা করা হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাংলাদেশ দল। সেন্ট ভিনসেন্টে সিরিজের প্রথম টেস্টে সপ্তম ওভারের বোলিং করতে গিয়েই ইনজুরিতে মাশরাফি। অধিনায়কের পদবি সেই থেকেই সাকিব আল হাসানের কাছে। মাশরাফি ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরলেও সাকিবকেই রাখা হয়েছিল দায়িত্বে। তাকে দায়িত্ব ফিরিয়ে দেওয়া হবে কি হবে না, এমন প্রশ্নে দ্বিধায় ছিলেন বিসিবির কর্মকর্তারাও। সর্বশেষ টি২০ বিশ্বকাপ শেষে প্রথম দফায় ইংল্যান্ড সফর পর্যন্তও সেই দ্বিধা কাটেনি বোর্ড কর্মকর্তাদের। এরপর ওয়ানডে সিরিজ খেলতে দ্বিতীয় দফা ইংল্যান্ড সফর। দ্বিধা কেটে এবার অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফিকে পুনর্বহাল। মাশরাফিকে অধিনায়কের ঘোষণা দেওয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হলো, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষে কাউন্টি ক্রিকেট খেলতে ওস্টারশায়ারে যোগ দেবেন সাকিব। আয়ারল্যান্ড, স্কটল্যান্ড ও হল্যান্ডের সঙ্গে সফরের চারটি এক দিনের ম্যাচে তিনি থাকবেন না দলের সঙ্গে। সে কারণেই সিরিজের প্রথম থেকে মাশরাফিকে অধিনায়ক করে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বোর্ডের এমন কথা শতভাগ সত্য নয়। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেও বাংলাদেশ দলে ছিলেন সাকিব, থাকছেন স্কটল্যান্ড ও হল্যান্ডের বিপক্ষে ১৯ ও ২০ জুলাইয়ে দুটি ম্যাচে। এরপর বাংলাদেশ দল দেশে ফিরবে আর সাকিব যোগ দেবেন ওস্টারশায়ারের ক্যাম্পে। এসব খবরের সত্যতা স্বীকার করে বোর্ডের পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস সংবাদমাধ্যমে জানান, সাকিব নিজেই অধিনায়কের পদ থেকে আপাতত বিশ্রাম চেয়েছিলেন। পুরো সফরেই তিনি দলের সঙ্গে থাকবেন বলেও জানান এই বোর্ড পরিচালক। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের মাত্র আট মাস আগে কেন এমন আকস্মিক সিদ্ধান্ত, কেনইবা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাকিব ও কাউন্টি ক্রিকেটের প্রসঙ্গ টেনে এহেন বিভ্রান্তি ছড়ানো। এ নিয়ে যোগাযোগ করা হয়েছিল বোর্ড সংশ্লিষ্ট নানা পক্ষের সঙ্গে। তাদের সঙ্গে আলোচনা থেকে পাওয়া তথ্যগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা গেল, সাকিবকে অধিনায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার নেপথ্যে রয়েছে নানা কারণ। সেসব কারণের ওপর ভিত্তি করেই সমকালের পাঠকদের জন্য এ প্রতিবেদন।
হ মাশরাফি-সাকিব সম্পর্ক
ইনজুরি থেকে সেরে উঠে মাশরাফির দলে ফেরা নিয়ে তৈরি বিতর্কে সাকিবের ভূমিকা ছিল নেতিবাচক। আচরণ ছিল ঔদ্ধত্যপূর্ণ। ফলে সাকিবের অধীনে খেলতে প্রস্তুত থাকার পরও দেশসেরা এ পেসারের দলে ফেরা হয়ে পড়ে কঠিন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে দলে ফিরলেও দ্বিতীয় ম্যাচে তাকে দলের বাইরে রাখা হয়। সাকিব আর সিডন্সের এমন যৌথ সিদ্ধান্তে মাশরাফির সঙ্গে কোনো আলোচনাই করা হয়নি। এ নিয়ে বিবাদে মাশরাফি হোটেল ছেড়ে বাসায় চলে আসেন। মিডিয়ায় এ খবর প্রকাশ হলে সাকিব সরাসরি জানিয়ে দেন, কে দলে থাকবে কে থাকবে না, তা জানাতে তিনি বাধ্য নন। কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে তৃতীয় ম্যাচে মাশরাফি দলে ফিরতে চাইলেও সাকিবের কারণে তা শেষ পর্যন্ত হয়ে ওঠেনি। এরপর নিজেকে দলে অপ্রয়োজনীয় মনে করে মিথ্যা এক অজুহাত দেখিয়ে মাশরাফি নিজেকে দল থেকে প্রত্যাহার করে নেন।
হ বিসিবির সমালোচনায় সাকিব
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজে রিভিউ সিস্টেমের ব্যবস্থা না করার জন্য প্রকাশ্যে বিসিবির সমালোচনা করেন দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। সংবাদ সম্মেলনে সাকিব মন্তব্য করেছিলেন, আইসিসি সভাপতির বর্তমান সফরের পেছনে যে ব্যয় করা হচ্ছে, তা দিয়েই রিভিউ সিস্টেমের ব্যয় মেটানো সম্ভব ছিল। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারণেই সাকিবের এ ক্ষোভ প্রকাশটা থাকলেও, প্রকাশের ধরনে তুষ্ট ছিলেন না বোর্ড কর্মকর্তারা। দেশে তো বটেই বিদেশি মিডিয়াতেও সাকিবের এ হতাশার কথা ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়।
হ দলীয় পারফরম্যান্স
বোলার হিসেবে সাকিবের ফর্ম ভালো হলেও তার অধীনে বাংলাদেশ দল কোনো বড় সাফল্য পাচ্ছিল না। দেশে এবং বিদেশে দুটি করে সিরিজ ও একটি বিশ্বকাপ মিলিয়ে কোনো ধরনের ক্রিকেটেই গত ছয় মাসে জয় আসেনি বাংলাদেশের। বোর্ডের নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকা একটি পক্ষ সাকিবকে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণ হিসেবে জানালেন এ কথা।
হ সাকিবের ব্যাটিং পারফরম্যান্স
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অর্ধশতকবিহীন টেস্ট সিরিজ। নয়টি ওয়ানডে ম্যাচেও ছিল না কোনো ফিফটি। সাকিবের এমন ফর্মের কারণে দলের মিডল অর্ডার প্রায় ভেঙে পড়েছিল। বোলিংয়ে নিজের অবস্থান ধরে রাখলেও অধিনায়কত্বের চাপে নাকি ব্যাটিং ফর্ম হারিয়ে ফেলেছিলেন সাকিব। দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে এটিও ছিল বড় একটি কারণ।
হ সিনিয়রদের সঙ্গে অসদাচরণ
মাশরাফি ছাড়াও দলের একাধিক সিনিয়র ক্রিকেটার সাকিবের অধীনে খেলতে স্বস্তিবোধ করছিলেন না বলে তথ্য ছিল বোর্ড কর্মকর্তাদের কাছে। স্পিনার আবদুর রাজ্জাককে নিয়ে সাকিব প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এতে করে দলের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। রকিবুল হাসান নাটকীয়ভাবে দল থেকে পদত্যাগ করলেও সাকিবের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দেওয়া বক্তব্য ছিল কঠোর_ যা কি-না তাকে সতীর্থদের কাছে অজনপ্রিয় করে তুলেছিল।
হ শক্তিশালী ক্লাব লবিং
আবাহনীর টানা চতুর্থ লীগ শিরোপাটা হাতছাড়া হয়েছে দলের অধিনায়ক সাকিবের ছোট্ট এক ভুলে। সেদিন মাঠেই প্রকাশ্যে অধিনায়কের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন ক্লাবটির একাধিক কর্মকর্তা। মোহামেডানের সঙ্গে শিরোপার সেই লড়াইয়ে হেরে গিয়ে ক্ষিপ্ত ক্লাব কর্মকর্তারা তখন থেকেই নাকি সাকিবকে জাতীয় দলের অধিনায়ক থেকে সরিয়ে দিতে তৎপর ছিলেন সুযোগের অপেক্ষায়। সম্প্রতি জাতীয় দলে সাকিব তার নামের সঙ্গে সুবিচার করছিলেন না। বিশেষ করে তার ব্যাটিং পারফরম্যান্সটা বেশ কয়েক ম্যাচ ধরেই নিম্নগামী। সুযোগটাও কাজে লাগানো হয়েছে এমন সময়ই। এমন কারণের কথা জানালেন বোর্ডে থাকা আবাহনীবিরোধী শিবিরের কয়েক কর্মকর্তা।
হ বোর্ড সভাপতির সঙ্গে সম্পর্ক
গত জানুয়ারিতে ভারতের বিপক্ষে হোম সিরিজের সময় বোর্ড সভাপতির সঙ্গে প্রকাশ্যে বিবাদে জড়িয়ে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। জনসমর্থন সাকিবের পক্ষে থাকায় সে সময় সাকিবের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি। পরে সাকিব ক্ষমা প্রার্থনা করলেও তাতে নাকি বোর্ড সভাপতির ক্ষোভ মেটেনি বলেই ধারণা বোর্ডেরই একটি পক্ষের। তারই ফল সাকিবকে সরিয়ে দেওয়া_ এমনটি মনে করছেন ক্রিকেটাঙ্গনের অনেকেই।
হ আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সঙ্গে আচরণ অজ্ঞতা
লর্ডস টেস্ট শুরুর আগের দিন ম্যাচ পাতানো প্রসঙ্গে সাকিবের বক্তব্য সারা ক্রিকেট বিশ্বে আলোচনার ঝড় তোলে। বিসিবির কর্মকর্তারা মনে করতে শুরু করেন, বিষয়টি সাকিব ইচ্ছে করেই করেছেন এবং এমন কথার কোনো প্রয়োজনই ছিল না। এতে করে লর্ডস টেস্টে দলের পারফরম্যান্সেও প্রভাব পড়েছে বলে মন্তব্য করেন কর্মকর্তারা। এরপর ম্যাচ শেষে নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি না এসে কোচ জিমি সিডন্সকে পাঠানোর পরও নানা সমালোচনার মুখে পড়তে হয় তাকে।
হ উপদেশ মানতে অব্যাহত অপরাগতা
সাকিব নাকি সবসময় মনে করেন, তিনি যা ভাবছেন সেটিই সঠিক, সেটিই সেরা। মাঝে মধ্যে সেসব ভাবনা বুমেরাং হলেও তা নিয়ে তিনি ভাবতেন না। সতীর্থদের এমন গুরুতর অভিযোগ অধিনায়কের বিরুদ্ধে। চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাটিং পিচে টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত তার নাকি একার নেওয়া। এমন ভুল করেও সাকিব অনুতপ্ত ছিলেন না বলে জানালেন তারই এক সতীর্থ।
হ দলে গ্রুপিং, অন্তর্দ্বন্দ্ব
সাকিব সবসময়ই বলে বেড়ান দলে দুটি গ্রুপ, একটি হচ্ছে ব্যাটসম্যান, অন্যটি হচ্ছে বোলার; কিন্তু তার সতীর্থদের প্রায় সবাই বোর্ডসহ একাধিক মিডিয়া নাম না প্রকাশের শর্তে জানায়, সাকিবের নেতৃত্বে আস্থা নেই তাদের। দলে ঐক্য নেই। সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ_ তিনি তামিম, মুশফিক আর নাঈমের প্রতি যতটা নমনীয় ঠিক ততটাই কঠোর দলের অন্যদের প্রতি।
রেটিং দিন :

erm.. what does this say exactly???? its way too long... font is way too small.. n just way too much bangla.. eta porte gele amar shara din lege jabe.. ar ryt now etotuk dhorjo nai amar... je chhoto lekha.. :(....

can anyone temme very briefly wat its about???

mona
July 18, 2010, 09:02 AM
Sachin himself is the best example. :)

Thanking you! True heroes let their bats have all the attitude.

A slightly OT question patriot.. but do you have a Scottish accent?

patriot
July 18, 2010, 09:33 AM
A slightly OT question patriot.. but do you have a Scottish accent?

Unfortunately NO.

bujhee kom
July 18, 2010, 11:32 AM
Guys just read todays somokal what they have written about sakib,him captaincy
[বাংলা]ক্রীড়া প্রতিবেদক : জুলাই ২০০৯। মাশরাফি বিন মর্তুজাকে অধিনায়ক আর সাকিব আল হাসানকে ডেপুটি করে ঘোষণা করা হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাংলাদেশ দল। ........
হ দলে গ্রুপিং, অন্তর্দ্বন্দ্ব
সাকিব সবসময়ই বলে বেড়ান ...যতটা নমনীয় ঠিক ততটাই কঠোর দলের অন্যদের প্রতি।
রেটিং দিন[/বাংলা] :

Dear Shabbir bhai, thank you for sharing this with us, otherwise a lot of us would miss waht these scumbags write and do hiding behind the masks of un-journalism!! These Shomokal etc, so called papers and their reporters, writers are nothing but simple scumbags, low lives, liars! They are the true lineage, residue of the traitor bloodline of infamous traitors of Bangla, Mir-Jaffar, Ghosheti Begum, Umi Chand and Rai Durlov!!! I absolutely loathe their(These socalled Shomokal and some other BD newspapers' journalists and writers/contributors) sole existence on our soil, in our air, and within our sacred language!

Just a few months ago, like 2-3 months ago, we called Shakib Al Hasan our 'Baap' / 'Baba'/ 'Father' of BD cricket and now you are saying all these, after a month of fallen/dropped form? A couple of months ago we held Shakib Al Hasan on our shoulders when he was the world's number 1 ODI All-rounder (and he is still world's number 2 right now) and when the Wisden Magazine mentioned him as their chosen cricketer of the year and so on, we danced on the street and foamed in our mouth, and now a couple of months later this is what we do? This is what we try to instigate? These people have never anything to good to say, nothing constructive to say, they never contribute with anything positive ever, they never solve anything, they are actually the true conspirators, fabricators, liars that are real parasites of our society, pure criminal matter! Salar Mir-Jafar and Ghosheti Begum ka blood line, die and die far far away form Bangladesh!! That is "Durey gia mor sala!"

Shakib Al Hasan may Allah bless you!!! Yes, when Shakib takes wrong decision and makes stupid mistakes, trust me we will rip him apart, we have that right as we respect, admire and love him that way!
But not in these Shomokal's scumbags' way! Not while we are still alive! All the best to Shakib!:big_hug: :flag: :notworthy:

Nasif
July 18, 2010, 11:42 AM
je chhoto lekha.. :(....

Set your browser's Bangla rendering font to fix the sizing issue. Use Likhan or Rupali font to get readable font size.
You can use this guide:
http://www.banglacricket.com/tools/bangla/bangla-browser.php

Also make sure you have bangla fonts pack loaded.
http://www.banglacricket.com/tools/bangla/bangla_fonts_pack.zip

Rifat
July 18, 2010, 11:44 AM
That spells B.S.

Anyways Afridi is the last one you wanna make a role model :floor: He's the gloried Ash of Pakistani team.

And being cocky doesn't mean that they'll play with lotsa enthusiasm. It can be either ways. Sachin himself is the best example. :)

Exactly. Just because you're cocky doesn't necessarily mean you're a superstar. A player who takes the time to have a casual chat to the fans will always be loved. Kuddos to Shakib. And for those who claim they'd rather a cocky attitude - seriously experience an interaction with a cocky player. It will just piss you off. Why would they be cocky to you? You're a fan, not a competitor.

exactly :)

magic boy
July 18, 2010, 11:54 AM
Set your browser's Bangla rendering font to fix the sizing issue. Use Likhan or Rupali font to get readable font size.
You can use this guide:
http://www.banglacricket.com/tools/bangla/bangla-browser.php

Also make sure you have bangla fonts pack loaded.
http://www.banglacricket.com/tools/bangla/bangla_fonts_pack.zip

thanx a lot Nasif bhai...for last few days I was looking for a solution like this:drool:

simon
July 18, 2010, 12:42 PM
man..i'm jealous..i wanna meet him too...n mashrafe..more than anyone else... unluckily enuf..i have NEVER met or seen any cricketer in person..:(:(...... never even watched a match in the stadium...:(:(btw patriot bhai..did u get his autograph?? or pix with him??? :P

u r not the only one my dear.:(

Neel Here
July 18, 2010, 01:16 PM
May be that's exactly what's missing in our players. S~W~A~G~G~E~R. You need to have certain amount of cockiness if you wanna shine. 100 in 37 surely gives one right to think he is far above the mortals. Lol @ everyone in this thread getting all swoony cuz of his down-to-earth attitude.

some people like tendulkar didn't need it. or bradman for that matter.

FagunerAgun
July 18, 2010, 01:35 PM
Good to know about Shakib, The Ice Man.

auntu
July 18, 2010, 02:06 PM
[বাংলা]সস্তা বাংলাদেশী সাংবাদিকতা।
তবে লোটা সংক্রান্ত খব সঠিক বলেই প্রতিয়মান হয়।
বিসিবি হলো অন্তর্দন্ডে জর্জরিত এক প্রতিষ্ঠান। [/বাংলা]

nycpro96
July 18, 2010, 02:25 PM
Thats frikkin awesome. I'm super jealous right now. But I do agree that a player of Shakib Al Hasan' stature should have some swagga and pep to the step.

dark mage
July 18, 2010, 03:30 PM
Dear Shabbir bhai, thank you for sharing this with us, otherwise a lot of us would miss waht these scumbags write and do hiding behind the masks of un-journalism!! These Shomokal etc, so called papers and their reporters, writers are nothing but simple scumbags, low lives, liars! They are the true lineage, residue of the traitor bloodline of infamous traitors of Bangla, Mir-Jaffar, Ghosheti Begum, Umi Chand and Rai Durlov!!! I absolutely loathe their(These socalled Shomokal and some other BD newspapers' journalists and writers/contributors) sole existence on our soil, in our air, and within our sacred language!

Just a few months ago, like 2-3 months ago, we called Shakib Al Hasan our 'Baap' / 'Baba'/ 'Father' of BD cricket and now you are saying all these, after a month of fallen/dropped form? A couple of months ago we held Shakib Al Hasan on our shoulders when he was the world's number 1 ODI All-rounder (and he is still world's number 2 right now) and when the Wisden Magazine mentioned him as their chosen cricketer of the year and so on, we danced on the street and foamed in our mouth, and now a couple of months later this is what we do? This is what we try to instigate? These people have never anything to good to say, nothing constructive to say, they never contribute with anything positive ever, they never solve anything, they are actually the true conspirators, fabricators, liars that are real parasites of our society, pure criminal matter! Salar Mir-Jafar and Ghosheti Begum ka blood line, die and die far far away form Bangladesh!! That is "Durey gia mor sala!"

Shakib Al Hasan may Allah bless you!!! Yes, when Shakib takes wrong decision and makes stupid mistakes, trust me we will rip him apart, we have that right as we respect, admire and love him that way!
But not in these Shomokal's scumbags' way! Not while we are still alive! All the best to Shakib!:big_hug: :flag: :notworthy:

QFT good post

And these same journalists keep singing words of praise about Ashraful even after he failed to perform for years and bash a player who used to be the number 1 all rounder in World Cricket, is one of the mnost prolific spinners in the world at the moment, just because he is having a bad time with the bat for a month. Go figure..

dolcevita
July 18, 2010, 05:07 PM
Shakib is still number 1 All rounder and number 2 in bowlers ranking
<br />Posted via BC Mobile Edition (iPhone)

czone
July 19, 2010, 12:48 AM
Horrible Shomokal journalism. knowing Sakib, Mashrafee and most of the BD players through the domestic circuit, they possess a teamspirit at the highest degree when playing for the national team.

crikfreak
July 19, 2010, 05:35 AM
Set your browser's Bangla rendering font to fix the sizing issue. Use Likhan or Rupali font to get readable font size.
You can use this guide:
http://www.banglacricket.com/tools/bangla/bangla-browser.php

Also make sure you have bangla fonts pack loaded.
http://www.banglacricket.com/tools/bangla/bangla_fonts_pack.zip

thnk u..............:-D:-D.......

crikfreak
July 19, 2010, 05:36 AM
u r not the only one my dear.:(

looks like u n i are on the same boat then..........:doh:

Tigers_eye
July 19, 2010, 06:39 AM
Guys just read todays somokal what they have written about sakib,him captaincy
ক্রীড়া প্রতিবেদক : জুলাই ২০০৯। ...
রেটিং দিন :
ek bosor ager khobor ajkey rating dibo?

A big "F" to shomokal.

Tigers_eye
July 19, 2010, 06:42 AM
Dear Patriot Bro,
Since you saw him most recently, how tall is he and how tall are you? :)

patriot
July 19, 2010, 09:40 AM
Dear Patriot Bro,
Since you saw him most recently, how tall is he and how tall are you? :)

Shakib is a bit taller than me . My height is 173 cm (5' 8") , So I guess his would be 5' 9" (175 or 176 cm) .

Zeeshan
July 19, 2010, 09:49 AM
some people like tendulkar didn't need it. or bradman for that matter.

a man should be cocky because he is not "great enough to be humble".

lamisa
July 19, 2010, 10:42 AM
did u ask him anything about his recent batting form or his opinions about our coach?