PDA

View Full Version : পারিবারিক নির্যাতনের ভয়ংকর রূপ


Naimul_Hd
June 13, 2011, 07:10 PM
পারিবারিক নির্যাতনের ভয়ংকর রূপ

http://paloadmin.prothom-aloblog.com:8088/images/images/image.php/uploads/media/2011-06-13-17-00-29-041825900-7.jpg?width=340&&image=http://paloadmin.prothom-aloblog.com:8088/uploads/media/2011-06-13-17-00-29-041825900-7.jpg ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিত্সাধীন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষিকা রুমানা মনজুর
ছবি: প্রথম আলো


[বাংলা]‘কক্ষে ঢুকেই পেছন থেকে হামলা চালায় ও। চুলের মুঠি ধরে দুই চোখে আঙুল ঢুকিয়ে দেয়। কামড়ে নাক-মুখ ক্ষত-বিক্ষত করে। রক্তে পুরো শরীর ভরে যায়। একপর্যায়ে মেঝেতে পিছলে পড়ি নিজের রক্তের ওপর। এরপর...জ্ঞান ফিরলে দেখি, হাসপাতালের বিছানায়।’

এই বর্ণনা একজন নারীর, একজন মায়ের, একজন স্ত্রীর। তিনি রুমানা মনজুর। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক। ৫ জুন রাজধানীর ধানমন্ডিতে বাবার বাড়িতে স্বামী হাসান সাইদের হাতে নির্মমভাবে নির্যাতিত হন তিনি। পারিবারিক এই নির্যাতনের খবর সভ্য সমাজকে চরমভাবে নাড়া দেয়।

গতকাল ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রুমানা সাংবাদিকদের মাধ্যমে তাঁর একমাত্র কন্যা আনুশাসহ পরিবারের নিরাপত্তার দাবি করেন। কারণ স্বামী হাসান সাইদ তাঁকে গুলি করে হত্যা অথবা গায়ে এসিড নিক্ষেপের হুমকি দিয়েছেন।

২০০১ সালে হাসান সাইদের সঙ্গে বিয়ে হয় রুমানার। তাঁদের একমাত্র কন্যার বয়স সাড়ে পাঁচ বছর। রুমানা জানান, বিয়ের পর থেকেই সাইদ তাঁকে নির্যাতন করে আসছিলেন। সন্তানের দিকে তাকিয়ে সব কষ্ট সয়ে গেছেন। সর্বশেষ উচ্চশিক্ষার জন্য কানাডা যাওয়া নিয়ে মনোমালিন্য শুরু হয়। তারপর এই চরম নির্যাতন।

রুমানা বলেন, ‘গত ১০ বছর আমি অনেক কষ্ট করে সংসার করেছি। হাসাননের চোখের সমস্যা থাকায় সে হীনম্মন্যতায় ভুগত। সব সময় আমাকে মানসিক নির্যাতন করত। সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে পরিবারের কাউকেও এসব বিষয় জানাতাম না।’

রুমানার বাবা অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মনজুর হোসেন এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি বলেন, ‘আমার মেয়েটা খুব নম্র স্বভাবের। ১০ বছর ধরে সংসার করছে, আমাদের কখনো স্বামীর নির্যাতনের বিষয়ে কিছু বলেনি।’

মনজুর হোসেন বলেন, ‘সাইদ আমার মেয়ের দুই চোখ উপড়ে ফেলতে চেয়েছিল। ডাক্তার বলেছেন, মেয়ের বাঁ চোখ সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। ডান চোখে দেখতে পারবে কি না, তা-ও অনিশ্চিত।’ তিনি মেয়ের সুস্থতার জন্য সবার দোয়া কামনা করেন।

নির্যাতনের এ ঘটনায় রুমানার বাবা বাদী হয়ে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেছেন। ঘটনার পর থেকে সাইদ পলাতক। সাইদ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে পাস করা প্রকৌশলী। একসময় ব্যবসা করলেও তিনি এখন বেকার। থাকতেন শ্বশুরের বাসায়। সেখানেই চলত স্ত্রীর ওপর নির্যাতন। সাইদের মা-বাবা দুজনই যুক্তরাষ্ট্র-প্রবাসী।

এই নির্যাতনের প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি আজ মঙ্গলবার অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করেছে। [/বাংলা]

Prothom-Alo (http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-06-14/news/162243)

Naimul_Hd
June 13, 2011, 07:14 PM
It's all because of scholarship

DU teacher describes husband's assault on her

http://www.thedailystar.net/photo/2011/06/14/2011-06-14__f04.jpg (http://www.thedailystar.net/newDesign/photo_gallery.php?pid=189934)<small class="fixedcap">
Rumana Manjur, victim of domestic violence, in hospital yesterday. InsetSyeed Sumon</small>

“He pushed his fingers into my eyes,” a battered wife told newsmen yesterday how her sadistic husband made her suffer beyond belief, “And dragged me by my hair on the floor.”


Rumana Manjur was talking to the reporters at the city's LabAid Hospital for the first time since she was injured in the torture at her father's Dhanmondi residence on June 5.


Rumana, an assistant professor of Dhaka University, added the husband at one stage repeatedly gnawed her nose, face and throat. Now undergoing treatment at LabAid, she is set to leave for India in a day or two for better treatment. Her father Manjur Hossain told The Daily Star that they will leave the capital on completion of visa procedure.


Meanwhile, doctors have confirmed that Rumana's left eye has been completely damaged.
“Doctors are now trying to save the other eye,” said Manjur, a retired army officer.


Rumana, teacher of international relations department, was doing Master of Science (MS) in Colombia University, Canada, on Fulbright Scholarship, her father said.


Rumana claimed her husband Syeed Hasan Sumon frequently assaulted her during their 10-year conjugal life. He beat her up several times on her return from Canada on May 12.

The man was furious when she decided to continue her study in Canada. "But I tolerated all sorts of torture considering the future of my only daughter," she said. Before fleeing, Sumon had threatened Rumana with throwing acid or shooting her if she takes legal action, she said.

Sumon, a graduate from Bangladesh University of Engineering and Technology (Buet), has been living at his father-in-law's house since Rumana got pregnant, said Zobaida Nasreen, a teacher of DU anthropology department and a friend of Rumana.

Sumon used to quarrel with his wife over trifles and at times beat her up, said another DU teacher preferring anonymity. But Rumana did not tell her parents about her torment as she married him without their consent. Sumon, former student of Faujdarhat Cadet College, has never engaged himself in any kind of job or business, the teacher added.


However, Rumana's family members have demanded quick arrest and exemplary punishment of Sumon who went into hiding after a case was filed against him with Dhanmondi Police Station on June 6. They alleged Sumon's cousin Kamal Uddin, a public prosecutor of Chittagong, is lobbying to protect the accused. Contacted over the phone, Kamal told The Daily Star he is not in good terms with Sumon although they are relatives.

Sub-Inspector Mokbul Hossain, investigation officer of the case, said police have raided the accused's Paribagh residence in the city and would continue the hunt.


Also yesterday, Dhaka University Teachers' Association condemned the brutal attack on Rumana.
In a press release, the association leaders expressed grave concern as the accused has not been arrested even in a week of the incident. They urged the university administration as well as the government to take steps ensuring the victim gets proper treatment.


Daily Star (http://www.thedailystar.net/newDesign/news-details.php?nid=189934)

Naimul_Hd
June 13, 2011, 07:15 PM
TV Report

<object style="height: 390px; width: 640px"><param name="movie" value="https://www.youtube.com/v/ZWsWJsT0HqU?version=3"><param name="allowFullScreen" value="true"><param name="allowScriptAccess" value="always"><embed src="https://www.youtube.com/v/ZWsWJsT0HqU?version=3" type="application/x-shockwave-flash" allowfullscreen="true" allowScriptAccess="always" width="640" height="390"></object>

bujhee kom
June 13, 2011, 07:39 PM
This low life scumbag coward should be captured ASAP and needs to be executed ASAP! The scumbag should be burnt alive! Zero sympathy, zero tolerance for a scumbag like that should be the country's law and order!

PoorFan
June 13, 2011, 08:52 PM
That no life scumbag has 5 years old daughter, yet completely failed to recognize his love and best care towards her, so sad.

roman
June 13, 2011, 10:24 PM
issh ei vabe keu kauke marte pare? emon o hote pare je mohilar kono shomossha silo ba tader dampotto jibon shukher silo na othoba she/he had an extramarital affair. Kintu tai bole ei rokom nirjaton??? There is a thing called divorce.....

Naimul_Hd
June 13, 2011, 10:38 PM
[বাংলা]দেশ টা নরপশু দিয়ে ভরে যাচ্ছে ! বিস্ময়কর হলেও সত্যি যে, শিক্ষিত মানুষের সংখ্যাই বেশি ![/বাংলা]

Severus
June 13, 2011, 10:47 PM
[বাংলা]বেটা একেতো ঘরজামাই, তার উপরে কাজ কাম ও কিছু করে না। কিসের এত তেল ? [/বাংলা]

Rabz
June 14, 2011, 04:09 AM
The saddest part is, this happened in a very well educated, well off middle class family living in a affluent suburb of the capital. This is the group that are supposed to be the torch bearer of the moral, norms and value of our progressive society.

Unfortunately, it only reflects the current situation of complete social decadence in our country.
In a country, where the Law and Order dept remains the most corrupted sector, its only natural that we continue to see such heinous act over and over again.

nakedzero
June 14, 2011, 04:52 AM
http://i53.tinypic.com/23s6hy9.jpg

AWHHH :-(

auntu
June 14, 2011, 07:55 AM
[বাংলা]আমাদের তথাকথিত সুশীল সমাজের অন্তঃর্নিহিত কুৎসিত রূপ। [/বাংলা]

nakedzero
June 14, 2011, 09:46 AM
[বাংলা]স্বামীর নির্যাতনের শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রুমানা মনজুরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারত নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে রুমানাকে নিয়ে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ভারতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেছেন তার বাবা-মা।

তাকে চেন্নাইয়ের একটি চক্ষু হাসপাতালে ভর্তি করা হবে বলে জানা দেলোয়ার।

সকাল ১২টায় ল্যাবএইড বিশেষায়িত হাসপাতাল থেকে রুমানাকে ছাড়পত্র দেওয়া হয় বলে জানান হাসপাতালটির মিডিয়া ম্যানেজার কামাল হোসাইন।[/বাংলা]

SOURCE (http://www.bdnews24.com/bangla/details.php?cid=2&id=161767&hb=3)

Hatebreed
June 14, 2011, 12:57 PM
This is absolutely horrendous. I hope that lowlife gets cold hard justice served up his rear.

Naimul_Hd
June 15, 2011, 02:46 AM
রুমানা মনজুরকে নির্যাতনের ঘটনায় হাইকোর্টের রুল

নিজস্ব প্রতিবেদক | তারিখ: ১৫-০৬-২০১১

http://paloadmin.prothom-aloblog.com:8088/images/images/image.php/uploads/media/2011-06-15-07-19-00-079699800-2011-06-14-17-53-26-004864100-du-teacher.jpg?width=340&&image=http://paloadmin.prothom-aloblog.com:8088/uploads/media/2011-06-15-07-19-00-079699800-2011-06-14-17-53-26-004864100-du-teacher.jpg হাসান সাইদ




[বাংলা]ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক রুমানা মনজুরকে নির্যাতনের ঘটনায় তাঁর স্বামী হাসান সাইদকে কেন গ্রেপ্তার করা হয়নি, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। আজ বুধবার বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দীন চৌধুরী ও বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে রুল জারি করেছেন।

কাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা, ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও ধানমন্ডি সার্কেলের সহকারী কমিশনারকে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। ‘উন্নত চিকিত্সার জন্য ভারতে রুমানা, সাইদের গ্রেপ্তার দাবি’—এ শিরোনামে দৈনিক প্রথম আলোতে আজ একটি প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়। এ ছাড়া আসামিরা গ্রেপ্তারের বাইরে এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত হয়। বিষয়টি নজরে এলে আজ সকালে আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এই রুল জারি করেন।

গত ৫ জুন ধানমন্ডির বাসায় স্বামী হাসান সাইদের নির্যাতনের শিকার হন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুমানা মনজুর। পরদিন তাঁর বাবা মনজুর হোসেন বাদী হয়ে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন। তবে এখন পর্যন্ত পুলিশ সাইদকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

গুরুতর আহত রুমানা আট দিন রাজধানী ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিত্সাধীন ছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার তাঁকে উন্নত চিকিত্সার জন্য ভারতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। নির্যাতনে রুমানার বাঁ-চোখ নষ্ট হয়ে গেছে এবং ডান চোখের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে এখানকার চিকিত্সকেরা জানিয়েছেন। [/বাংলা]

http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-06-15/news/162605

Antora
June 15, 2011, 03:35 AM
I saw this on the news and was so shocked. Can a person really do this? it disgusts me! But my thing is , She ( Rumana) is a teacher and well educated, if your husband is abusive then divorce. What's the point in keeping an abusive relationship? I understand that divorce is looked down upon in our culture, but really? No wife deserves to liver her life like that. A man who abuses his wife is no man at all.

nakedzero
June 15, 2011, 03:46 AM
I saw this on the news and was so shocked. Can a person really do this? it disgusts me! But my thing is , She ( Rumana) is a teacher and well educated, if your husband is abusive then divorce. What's the point in keeping an abusive relationship? I understand that divorce is looked down upon in our culture, but really? No wife deserves to liver her life like that. A man who abuses his wife is no man at all.

I guess she couldn't think that the guy could be this much offensive and dangerous for her. What ever, that guy should get hanged in public or like bujheekom brother said "The scumbag should be burnt alive".

Rabz
June 15, 2011, 04:34 AM
Romana's husband held


Wed, Jun 15th, 2011 2:53 pm BdST


Dhaka, June 15 (bdnews24.com) — Detectives have arrested the husband of tortured Dhaka University teacher Romana Manjoor, nine days after the brutal incident.

Deputy commissioner of Detective Branch (south) Munirul Islam told bdnews24.com that Hassan Syed was arrested around 2:15pm on Wednesday from one of his relatives' residence at Mugdha in the city.

Romana Manjoor, assistant professor of the International Relations department, was severely assaulted allegedly by her husband on June 5 at her father's residence at Dhanmondi.

She was later admitted to LabAid Hospital.

Syed had been on the run since then.

Father of the victim Manjur Hossain, a retired army personnel, filed a case with Dhanmondi Police Station the following day.

Earlier in the day, a High Court bench asked the government why the lone accused in the case was not arrested yet. It also ordered the investigation officer in the case, officer in-charge and Dhanmondi circle assistant commissioner to appear before it on Thursday.

Romana was taken to Chennai, India for better treatment on Tuesday afternoon after she was released from LabAid Specialised Hospital at noon.

On Tuesday, Dhaka University Teachers' Association gave the government a 24-hour ultimatum for the arrest of Hassan. Teachers and students of Romana's department also demonstrated protesting the incident.

http://bdnews24.com/details.php?cid=2&id=198512&hb=top

Naimul_Hd
June 15, 2011, 04:41 AM
[বাংলা]২ দিন আগেও পুলিশ এই নরপশু টাকে ধরতে পারে নাই...এখন পুলিশ ঠিকি ধরলো কিনতু আদালতের পেদানি খায়ে ![/বাংলা]
================================================== ==================================
ঢাবি শিক্ষক রুমানা মনজুরের স্বামী সাইদ গ্রেপ্তার (http://banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=37836091f56fa1178678c1cad54e7 75c&nttl=2011061544809&toppos=1)

<hr style="border: 1px solid rgb(214, 214, 214);" width="100%" color="#ffffff"> স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্ িফোর.কম
<table align="left" border="0" cellpadding="5" cellspacing="0"> <tbody><tr><td> http://www.banglanews24.com/images/imgAll/2011June/SM/bbb-bg20110615144901.jpg </td></tr></tbody></table>[বাংলা]ঢাকা : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রুমানা মনজুরকে নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলার একমাত্র আসামি হাসান সাইদকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি সাউথের একটি দল)।
বুধবার তাকে রাজধানীর মুগদা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন মহানগর ডিবি দক্ষিণের উপ কমিশনার (ডিসি) মো. মনিরুল ইসলাম।
ডিবি সূত্রে জানা গেছে, হাসান সাইদকে গ্রেপ্তারের জন্য নগর গোয়েন্দা পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার শহীদুল্লাহার নেতৃত্বে একটি দল চট্টগ্রামে এবং সহকারী কমিশনার আহাদের নেতৃত্বে আরেকটি দল রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়।
বুধবার বেলা সোয়া ২টার দিকে উত্তর মুগদার এক আত্মীয়ের বাসা থেকে ডিবির সহকারী কমিশনার আহাদের নেতৃত্বে সাইদকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর জানা যায়, আজ সকালেই তিনি ওই আত্মীয়ের বাসায় উঠেছেন।


উপ কমিশনার (ডিসি) মো. মনিরুল ইসলাম আরও জানান, সাইদকে আজ বিকেল ৪টায় মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে হাজির করা হবে।


এর আগে হাসান সাইদকে কেন গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না, তার ব্যাখ্যা চেয়ে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় রুল জারি করেন হাইকোর্ট।


রুলে ধানমণ্ডি সার্কেলের সহকারী কমিশনার (এসি), ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবং তদন্ত কর্মকর্তাকে তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়।
আদালতের রুল জারির প্রায় ৪ ঘণ্টার মধ্যেই তাকে গ্রেপ্তার করল ডিবি।


উল্লেখ্য, এমন একটি নৃশংস পৈশাচিক ঘটনার পরও সাইদকে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে পুলিশের গা-ছাড়া ভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মঙ্গলবার অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে পৃথক কমসূচি থেকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সাইদকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশকে সময় বেঁধে দেন। কিন্ত পুলিশের তরফ থেকে তৎপরতা দেখা যায়নি।


বুধবার দুপুর ১২টায় সে আলটিমেটামের সময় পেরিয়ে যায়। এদিকে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় হাইকোর্ট সাইদকে গ্রেপ্তারের জন্য রুল জারি করার পর দুপুর ২টা মিনিটের মধ্যেই গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল সাইদকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।



গত ৫ জুন ধানমণ্ডির বাসায় স্বামী হাসান সাইদের নির্যাতনের শিকার হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুমানা মনজুর। তাকে ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবার তাকে ভারতের চেন্নাইয়ে নেওয়া হয়েছে।


ঘটনার পরদিন রুমানার বাবা মঞ্জুর হোসেন ধানমণ্ডি থানায় হাসান সাইদকে আসামি করে মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে সাইদ পলাতক ছিলেন।।
[/বাংলা]

nakedzero
June 15, 2011, 04:41 AM
BD Police chaile ashole shob pare. Glad to know that psycho got arrested. Now time to see him getting proper punishment.

Naimul_Hd
June 15, 2011, 07:15 AM
https://fbcdn-sphotos-a.akamaihd.net/hphotos-ak-ash4/259942_10150217858377590_596337589_7221424_4765215 _n.jpg


https://fbcdn-sphotos-a.akamaihd.net/hphotos-ak-snc6/259942_10150217858362590_596337589_7221422_3458377 _n.jpg


https://fbcdn-sphotos-a.akamaihd.net/hphotos-ak-ash4/259942_10150217858372590_596337589_7221423_3191533 _n.jpg

simon
June 15, 2011, 08:06 AM
manush er chehara dekhle ashole bojha jayna tara poshur cheyeo hingsro hote parey,
hope he gets hanged.

akabir77
June 15, 2011, 08:14 AM
BTW I don't think the report was fair to the police. how could they see activity of police? like all the police should run all the time and that would show they are very active? I think its just coincident that he got caught after the court order, cause police could have easily said to court they can't find him. i mean its not like all bd people have ssn or something and easy to find...

Kabir
June 16, 2011, 12:57 PM
So you're telling me that he forced his fingers inside her eyes? I understand pulling her by the hair...i understand beating up someone. But this???

Cannot comprehend this. Worse than any other assaults I've heard of. Can't even think of what pain she went through. No comments on this a**hole. There's no way justice can be served in this case - although, making him go through the same $hit, and completing the process with pure lynching will probably help ease the pain.

This lady looks VERY familiar. Very very familiar in fact.

Murad
June 16, 2011, 01:04 PM
I feel sad for the lady. But deshe ekhon ja hoitese ekdomi bhalo lagche na. Just because she was a professor at DU, amader shobbo shomaj koto andolon kortese. Court koto rokom rule jari kortese. But imagine the lady was a nobody. Keo kono kisu bolto na. Kisui korto na. Amader shobbo shomaj jodi erokom protita case er jonne protest korto taile erokom ghotona eto ghot-to na.

Deshe protidin erokom koto ghotonai na hoitese. er cheye aro onek jogonno ghotona. But oi shubidabadi ra tokhon kisui kore na.

Boro lok ar powerful manushder jonne shob kisu but gorib der jonne kisui na.

Odhora
June 16, 2011, 01:35 PM
I feel sad for the lady. But deshe ekhon ja hoitese ekdomi bhalo lagche na. Just because she was a professor at DU, amader shobbo shomaj koto andolon kortese. Court koto rokom rule jari kortese. But imagine the lady was a nobody. Keo kono kisu bolto na. Kisui korto na. Amader shobbo shomaj jodi erokom protita case er jonne protest korto taile erokom ghotona eto ghot-to na.

Deshe protidin erokom koto ghotonai na hoitese. er cheye aro onek jogonno ghotona. But oi shubidabadi ra tokhon kisui kore na.

Boro lok ar powerful manushder jonne shob kisu but gorib der jonne kisui na.

Post of the year for me:applause::notworthy:

Well said Murad vaia.

Banglaguy
June 16, 2011, 01:45 PM
This guy is a frikkin dick, and this man shouldn't have the right to live. I hope he suffers for what he has done. Stupid man, any 15 year old could beat him up, and so he takes it out on his wife... Take his glasses of and give them to the poor, he won't need them were he is going.

AhmedN
June 17, 2011, 12:09 PM
This low life scumbag coward should be captured ASAP and needs to be executed ASAP! The scumbag should be burnt alive! Zero sympathy, zero tolerance for a scumbag like that should be the country's law and order!
signed. DU caders are enough for his punishment.

AhmedN
June 17, 2011, 12:13 PM
This guy is a frikkin dick, and this man shouldn't have the right to live. I hope he suffers for what he has done. Stupid man, any 15 year old could beat him up, and so he takes it out on his wife... Take his glasses of and give them to the poor, he won't need them were he is going.

Some BUET grads did almost the same thing in the West as well.

These egoistic people (some of them) cannot sell their talents here. Then get frustrated and then mistreat their spouse - the side effect of having so much talents or no talents in the West.:floor:

If they do not change themselves, no body can change them.

AhmedN
June 17, 2011, 12:19 PM
BD Police chaile ashole shob pare. Glad to know that psycho got arrested. Now time to see him getting proper punishment.

:clap::clap:

Ahsan
June 17, 2011, 01:04 PM
Looks like someone has a grudge on BUET grads? :down:

How come some sporadic incident can be generalized in this way?

Some BUET grads did almost the same thing in the West as well.

These egoistic people (some of them) cannot sell their talents here. Then get frustrated and then mistreat their spouse - the side effect of having so much talents or no talents in the West.:floor:

If they do not change themselves, no body can change them.

Ashfaq
June 17, 2011, 05:01 PM
AHmedN, this Sayeed is not a BUET grad. He never graduated.

It was a marriage of mismatch, where the wife outshines the husband in every aspect. This is the real danger of arranged marriage.

Naimul_Hd
June 17, 2011, 06:20 PM
AHmedN, this Sayeed is not a BUET grad. He never graduated.

It was a marriage of mismatch, where the wife outshines the husband in every aspect. This is the real danger of arranged marriage.

very true specially when both of them have "Ego" problem !

Murad
June 17, 2011, 06:57 PM
AHmedN, this Sayeed is not a BUET grad. He never graduated.

It was a marriage of mismatch, where the wife outshines the husband in every aspect. This is the real danger of arranged marriage.

Yeah. He didn't graduate. He stopped after the 3rd year because of his eyes (today's news).

It wasn't an arranged marriage. It was a loved marriage.

[বাংলা]তদন্তকারী সূত্র জানায়, রিমান্ডে সাইদ দাবি করেন, তিনি চশমা ছাড়া চোখে দেখেন না। উভয়ের মধ্যে মারামারির সময় একপর্যায়ে তাঁর চশমা খুলে নিচে পড়ে যায়। হয়তো আঙুল তাঁর স্ত্রীর চোখে ঢুকে গেছে। এ সময় তাঁর স্ত্রীর নাককে আঙুল মনে করে কামড়িয়েছেন। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ভর্তি হলেও চোখের সমস্যার কারণে তিনি তৃতীয় বর্ষের পর আর পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারেননি।

সাইদ দাবি করেন, বুয়েটে পড়ার সময় রুমানা মনজুরের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। পরে ’৯২ সালে তাঁদের প্রেম হয়। এর সাত বছর পর তাঁদের বিয়ে হয়। শ্বশুরের ঘরে তিনি অনেকটা অগ্রহণযোগ্য ছিলেন। এ কারণে তিনি তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে কানাডা যেতে কিংবা তাঁকে একা যেতে দিতে চাইতেন না। সেখানে গেলে তাঁকে কাজের ছেলের মতোই থাকতে হতো।

তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেন, অনেক প্রশ্নের সদুত্তর দিতে পারেননি হাসান। রিমান্ডে তিনি যেসব বক্তব্য দিচ্ছেন, তার সত্যতা কতটুকু, তা যাচাই করে দেখা হচ্ছে। আজ দুই দিনের রিমান্ড শেষে আগামীকাল তাঁকে আদালতে পাঠানো হবে।[/বাংলা]

http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-06-18/news/163315

bujhee kom
June 17, 2011, 10:47 PM
Dhuurr AhmedN bhai, ki je bolen, apni excited hoe gechen tow dada...having gone to BUET or being from BUET or BUET has nothing to do with this scumbag's this act of severe inhumane 'violence' against his spouse, the mother of his child. Murderers, criminals come from all institutions of Bangladesh, as a matter of fact, from all institutions all over the world! I myself didn't go to BUET, but to me I think BUET actually produces more gentle, tolerant and open minded induviduals in general and it is a superb World Class technical university which has a massive massive record of pumpimg out some of the brightest minds from Bangladesh!

And to my Ashfaq like Murad bhai said, it was a love marriage (according to what we sorted out of this clips here in this thread), not arranged by the respective familes and it is discussed in the last clip by Murad bhai.

bujhee kom
June 17, 2011, 10:50 PM
Bhais, apus, many thoughts, emotions run through the mind when I come to this thread, and as a matter of fact most of my day. I think about this event most of my awaken hours....so much thoughts go through my mind bhais.

A few days ago, I wanted to lynch this scumbag, I wanted to burn him alive but then I kept thinking bhais....someday that little girl will grow up (maybe) and on a day like this she will think how much her poor mother is in, blind, blinded by her own father, tortured by her own father...but if she has to think that someone then came and burnt him alive, that would be me, you see.....she will think he abbu was killed by this man or men...I mean what a sad that mind must have to be...that is beyond a painful realm that I haven't been;/...

On seperate hours I think about the event, the moments when this unthinkable bloody flesh ripping violence took place between some concrete walls...in a crowded city mind you....how ashamed Allah - our Creator might have been that night! All angels must have been bood vomiting in heaven! The attacker, the coward inhuman scumbag, this thing called Sumon, Hasan gnawed on her, prof. Manzoor's face, nose....this is not an average human being we are talking about here bhais, this is a severely deranged, sevrely mentally unstable, schotic, psychopathic violant induvidual who performed physical mutalation, canibalism, I mean this scumbag must have drunk some of the professor's, the victim's blood and tissues! This is the face of sheer pure violence, this is pure and simple Evil, if there is such thing exists, if there is such thing exists as God and heaven and angles and all!

Then bhais, again on a different hour I think of this thing called Hasan, Sumon (by the way Suman is my father and mother given Daak-naam of mine, can you believe it bhais), I think of him, see him on the run, from one relative's house to another, running from door to door and cowaring, I don't know if he is cowaring, he dafinitely doesn't sound a little bit remourseful, but still compassion arises in our mind, my mind and I think of a man on the run, like a small animal, i find pain in my soul.

I also think of, imagine the crying father to the media, an ex-Army ret. Officer weeping like a child for the life of his daughter, his child, he is begging for justice, to his people that he onced served and gave everything of his... in him I saw my own father crying!

I think of Prof. Rumana Manzoor and her future....what lies ahead of her? What is the next step, how do we go about picking up the pieces and go on? If she gets fully blinded, her carrier will be almost finished....I might be wrong, I hope I am wrong, I hope and pray that she turns around, yeah, she fightd back, even if she gets completely blind, I hope she teaches herself brailes (spell!) language and she continues her teaching at the University of Dhaka and finish over at University of British Columbia, her MS and continue on with education and remain an educator for the rest of her successful life! That is my request to Allah the All-Mighty directly, personally and whole-heartedly!

magic boy
June 17, 2011, 10:52 PM
the worst victim of this crime will be the heavenly angel looking infant who will most probably grow up hating men. My best wishes for her better future.

AhmedN
June 17, 2011, 11:57 PM
Dhuurr AhmedN bhai, ki je bolen, apni excited hoe gechen tow dada...having gone to BUET or being from BUET or BUET has nothing to do with this scumbag's this act of severe inhumane 'violence' against his spouse, the mother of his child. Murderers, criminals come from all institutions of Bangladesh, as a matter of fact, from all institutions all over the world! I myself didn't go to BUET, but to me I think BUET actually produces more gentle, tolerant and open minded induviduals in general and it is a superb World Class technical university which has a massive massive record of pumpimg out some of the brightest minds from Bangladesh!

And to my Ashfaq like Murad bhai said, it was a love marriage (according to what we sorted out of this clips here in this thread), not arranged by the respective familes and it is discussed in the last clip by Murad bhai.

thanks for giving what you think.

But I have a totally different experience and opinions about most of the BUET grads not all of them though.

I have at least twelve BUET grads around me doing pizza and other deliverty job..which is okay.

But if you are not a BUET grad and you like to talk to them as a fellow Bangladeshi, they will show their nostalgic and neferious ego ....instead they get sandals on their faces. Still does not work.

bujhee kom
June 18, 2011, 12:21 AM
thanks for giving what you think.

But I have a totally different experience and opinions about most of the BUET grads not all of them though.

I have at least twelve BUET grads around me doing pizza and other deliverty job..which is okay.

But if you are not a BUET grad and you like to talk to them as a fellow Bangladeshi, they will show their nostalgic and neferious ego ....instead they get sandals on their faces. Still does not work.

Those are definitely bad scums, you stand up to those fools AhmedN bhai and they do not deserve a friendly soul's open arms. I am very sorry that you had to go through this, experience this, these fools' low social behavior, I experienced it myself as a child growing up from a lot of fellow young students around me in the 70's, 80's, it definitely leaves a dark mark in your mind, definitely did for me.

AhmedN
June 18, 2011, 10:00 PM
Those are definitely bad scums, you stand up to those fools AhmedN bhai and they do not deserve a friendly soul's open arms. I am very sorry that you had to go through this, experience this, these fools' low social behavior, I experienced it myself as a child growing up from a lot of fellow young students around me in the 70's, 80's, it definitely leaves a dark mark in your mind, definitely did for me.
Yes, it makes sense to me.

Hopefully it will to the super :flag:talented individuals.

nakedzero
June 20, 2011, 01:34 PM
http://www.bdnews24.com/nimage/2011-06-20-21-56-22-Romana----tm20.jpg

Tortured Dhaka University teacher Rumana Monzur has lost both her eyes, Indian doctors have told her father.

"Doctors of Sankara Nethralaya in Chennai and Arvind Eye Centre in Pondicherry told me that both her eyes have been totally damaged," Rumana's father Monzur Hossain told bdnews24.com on Monday evening.

He said the wounds on her forehead, lips and face would be treated at the LabAid Hospital in Dhaka.

"Her eyes will also be treated to avoid further infections," he added.

Hossain demanded trial into the torture of Rumana, an assistant professor of International Relations department of the Dhaka University.

Her colleague Mohammad Tazimuddin Khan told bdnews24.com that she was taken to the LabAid Hospital.

Rumana was taken to India on June 14 for treatment, as she was severely injured in a physical assault by her husband, Hassan Sayed, who allegedly tried to gouge her eyes out and chewed her nose off in on June 5.

She is doing a master's degree in Political Science at the Vancouver campus of the University of British Columbia in Canada, where she was supposed to submit her thesis paper in October.

On June 15, Hassan was arrested and later grilled in a case filed in connection with the torture.

He claimed she had an extramarital affair with an Iranian man, whom Rumana met while studying in Canada.

DECISION ON RECOVERY AFTER DISCUSSION WITH FAMILY

Chairman of the Dhaka University International Relations department Delwar Hossain told bdnews24.com that a decision on the recovery of Rumana's eyes would be taken after discussing the matter with her family.

According to him, her left eye was totally damaged before and the other one is following it.

"Only 25 percent of the right eye is attached with the eyehole but it doesn't response to calls from her brain," he said.

Delwar said, "Indian doctors have lost hopes about the recovery of her eyes. They'll confirm it after two months."

"The decision on the recovery of her eyes will be taken after discussing the matter with her family," he added.

SOURCE (http://www.bdnews24.com/details.php?cid=2&id=198943&hb=2)

bujhee kom
June 20, 2011, 05:12 PM
Ami ei loktar (Sumon, Hassan) er Fashi chai....ASAP!
Haatjore Request to the honorable PM! Because otherwise, the way the country's law and order is going/heading/decaying a whole generation of social vigilante will grow and will start to take laws in their own hands. Which I don't support at all. I think clear visible sign of frustrations are appearing on people and people are going to explode sooner or later.

Murad
June 20, 2011, 06:52 PM
fashi dile kisu hobe na. or 2ta chokh ber kore kauwa ke khawano uchit.

nakedzero
June 21, 2011, 12:13 AM
Chokh 2 ta bar kore chokh er jaiga te or shorir er onno 2 ta gol jinish set kore deya uchit :D

Nadim
June 21, 2011, 03:31 PM
This guy is a frikkin dick, and this man shouldn't have the right to live. I hope he suffers for what he has done. Stupid man, any 15 year old could beat him up, and so he takes it out on his wife... Take his glasses of and give them to the poor, he won't need them were he is going.



Wow! Ur still alive at bc...
<br />Posted via BC Mobile Edition (Android)

Rabz
June 22, 2011, 04:30 AM
I think he should give one of his eyes to his wife so that she can see again.

nakedzero
June 22, 2011, 10:37 AM
I think he should give one of his eyes to his wife so that she can see again.

This is genius Idea! Why not both eyes? But this case should be investigated properly and make sure who is the real guilty and who is not.

Naimul_Hd
June 27, 2011, 07:54 AM
How an ordinary person can whitewash the whole nation, Mr. Sumon is a perfect example.

Good gesture from UBC.

রুমানা মনজুরকে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে কানাডায় র‌্যালি

<hr style="border: 1px solid rgb(214, 214, 214);" width="100%" color="#ffffff">[বাংলা] <table align="left" border="0" cellpadding="5" cellspacing="0"> <tbody><tr><td>http://www.banglanews24.com/images/imgAll/2011June/Rumana-Canada-bg20110627160206.jpg</td></tr> </tbody></table> ভ্যাংকুভার: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুমানা মনজুরের ওপর নির্যাতন ও তাকে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার (ইউবিসি) শিক্ষার্থীরা র‌্যালি করেছেন।

রোববার বিকেলে ভ্যাংকুভার আর্ট গ্যালারির সামনে রুমানা মনজুরের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এ র‌্যালি বের করেন বলে জানায় কানাডার দৈনিক দ্য ভ্যাংকুভার সান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকশ ছাত্রছাত্রী এ সময় র‌্যালিতে অংশ নেন।

গত ৫ জুন স্বামী হাসান সাইদের হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রুমানা মনজুর। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশের ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

র‌্যালিতে রুমানা মনজুরের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে রুমানার সহকর্মী নিমা তাহেরিনেজাদ বলেন, ‘এটা অবিশ্বাস্য যে কেউ এমন কাজ করতে পারে। এ রকম লোমহর্ষক ঘটনা এখনই বন্ধ করা উচিত।’

র‌্যালি থেকে পারিবারিক সহিংসতা বন্ধেরও আহবান জানানো হয়।

সেন্ট জনস কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. ওলাভ সেøমেকার বলেন, ‘পারিবারিক সহিংসতার বাস্তবতার ইস্যুতে সর্বত্র সচেতনতা বাড়ানো দরকার। এই ঘটনা কেবল দক্ষিণ এশিয়ার ইস্যু হিসেবে দেখার অবকাশ নেই।’

ডিক্সন ট্রানজিশনস সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক পানি আগিলি বলেন, ‘সারাবিশ্বে প্রতিদিনই নারী এবং শিশুদের ওপর যে সহিংসতার ঘটনা ঘটছে।’

রুমানা মনজুরকে হত্যাচেষ্টার সঠিক বিচার নিশ্চিত করতে অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনকে অবহিত করার কথা ভাবছেন র‌্যালির সংগঠকরা।

রুমানা মনজুরের চিকিৎসার জন্য ইউসিবি শিক্ষার্থীরা অর্থ সংগ্রহ করছে। চলতি মাসের ৩০ তারিখ পর্যন্ত এ অর্থ সংগ্রহ চলবে।[/বাংলা]

http://banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=6eaeb92aa84721ed6e66f4c77ccfa 308&nttl=2011062704020546566&toppos=2

F6_Turbo
June 27, 2011, 10:29 AM
This is genius Idea! Why not both eyes? But this case should be investigated properly and make sure who is the real guilty and who is not.

What does this mean? Are you looking for mitigating circumstances?

There can be NONE.

Kabir
July 6, 2011, 09:02 AM
She's now in British Columbia for treatment. News showed up on Yahoo. Look at the ignorance in the comments - I replied to a few that I couldn't just resist replying to.

http://ca.news.yahoo.com/b-c-university-student-blinded-bangladesh-attack-returning-171627469.html

lamisa
July 6, 2011, 10:28 AM
this woman works with my khala. i heard them talking about this brutal husband before this incident happened. ei betar chokh galay deya uchit!

banfan2
July 6, 2011, 02:37 PM
this woman works with my khala. i heard them talking about this brutal husband before this incident happened. ei betar chokh galay deya uchit!

tomar cousin, khala, mama kew na kew shob jaygay ase na?
jai hok ekta jinish shunle onekey obak hobe je londoneo paribarik nirjaton bangladesh theke kom hoy na. goto porshu amar dokane ekjon meye ashlo help-er jonno. becharike tar husband emon mair dise je pura mukh fule gese. kotha bolte partesena, ekta chokh khulte partesena. ami pore police-a phone kore dilam. ajke shuni husband bashay fire dekhe o arek cheler sathe bed-e. aijonno airokom mair dise!!!

bujhee kom
July 6, 2011, 03:19 PM
She's now in British Columbia for treatment. News showed up on Yahoo. Look at the ignorance in the comments - I replied to a few that I couldn't just resist replying to.

http://ca.news.yahoo.com/b-c-university-student-blinded-bangladesh-attack-returning-171627469.html

I am glad that UBC's Medical is going to treat her and see if they can help her regain some vision in one of the eyes. I am really glad that her Master's theisis/dissertation is almost complete, just need final proof reading and small changes which can be done, can be manged by her with a little bit better health condition. So that out of the way..I am very glad that her parents and her daughter are going to come stay with her next to her, be able to give strong mental support and love and assistance being family. I am very glad that UBC is nurturing the scholar, this rich mind, not abandoning her.

Now after all these, as she tries to get better, stronger, healthier and finish her master's and ...what is next for her...she wants to and she has to in her field, do a Phd. If she doesn't regain any vision in the only somewhat better eye, I hope and pray that she quickly pick up and learn/master Brailies(spell)....the written language for visually impaired and continue on with her Phd, finish it and teach and research, I am sure she can do all those at University of British Columbia, that is a fine school. It has the abilty and the facilty/faculty to assist blind students through Phd program in International Relation/Political Science, majors/subjects of her study, I have no doubt.



Thank you for the link my dearest Imran Kabir bhaiyo! I read all of the comments and I absolutely read your response to some of those bigots fools. Kabir bhai, I must say it is always dissapointing to see people, educated people think that way (those blady fools screaming their social security will have to pay for her treatment and education and all) ...I mean, you fools, in exchange the society of Canada, British Columbia are getting a rich scholar mind who in exchange will only enrich the academic/scholarly energy of your area. blah blah those fools...Kabir bhai, do not be despair and hurt at some scum poorly literate bigot's poor pathetic rant comments on Islam and/or Bangladesh. I actullay think highly of Canada, the people of Canada and and the society that it nurtures, develops. I have one of the highest respects for your neighbours and countrymen even though I always like to make fun fo Candanians, you know I am fool joker. But it is just simply a fact of life, and human minds that there will be scums, morans in every corner of this earth. Too bad Canada is no exception, there are some very racist people in Canada, but next to my United States of Amreica, my Pride, Red, White and Blue, Canada still seems like a pleasant place, more of a good socialist place, and man, in hthe USA, we are fighting them(the racists/the haters) too, every day, for racial equality, justice, religious freedom and gay rights! I am glad you replied something funny and strong to those morans in that comments section!

bujhee kom
July 6, 2011, 03:51 PM
This is genius Idea! Why not both eyes? But this case should be investigated properly and make sure who is the real guilty and who is not.

What does this mean? Are you looking for mitigating circumstances?

There can be NONE.

tomar cousin, khala, mama kew na kew shob jaygay ase na?
jai hok ekta jinish shunle onekey obak hobe je londoneo paribarik nirjaton bangladesh theke kom hoy na. goto porshu amar dokane ekjon meye ashlo help-er jonno. becharike tar husband emon mair dise je pura mukh fule gese. kotha bolte partesena, ekta chokh khulte partesena. ami pore police-a phone kore dilam. ajke shuni husband bashay fire dekhe o arek cheler sathe bed-e. aijonno airokom mair dise!!!

Naah bhais, Ziad, Turbo bhai and Charlie Chaplin dada, I hear you all. I know there is accusation by the attacker/husband Sumon that Prof. Manzoor had an extra marital affair with some Iranian person in BC, Canada. Also Charlie da, the extremely sad victim at your shop the other day (And thank Allah, you called the cops on this case), what you heard the next day that she probably was having an extra-marital affair with another young man and that's why her husband also beat her so violantly.

But both of these cases, one in Bangladesh and the other in England, both of these 2 countries have laws of the land. And we live in a civilized world, or at least like to claim to, then we must abide by these rules. No matter how much infidility there might be in a relationship between a man a woman, or a man and a man, or a woman and a woman, there is NO room for phisycal violence and physical harm, there is trust of fidility and there is trust of human to human interaction, when I meet you Haru da, Ziad face to face, a trust is forced upon all of us, me, you and him that I or you will not attack or hurt the other or you, because the moment that happens, with very simple physical violence that trust between two human being is broken, let it be between a father and a child or a mother and child. Phisycal violence, hitting someone, no matter how gently leaves a permanent scar in mind and that WILL reflect on the victims behaviour for the rest of his or her life. And this kinds of vilence/behaviour on another derail the natural mental growth of the victim.

They have laws for infidilty, if you see your spouse is cheating on you, go to the court, and seek divorce and probably sue for financial damage and all and go on your own way. We have these laws for at least a century now, but if want to live in a civilized law biding world, we just simply cannot beat our spouse to submission or torture. Let it be a guy or a woman.

Phisycal violence, simple law....korecho tow morecho! Imprison the abusers! If, and or when needed give the lethal injection.

banfan2
July 6, 2011, 04:33 PM
completely agreed bk_da

Naimul_Hd
December 5, 2011, 01:13 AM
Ami ei loktar (Sumon, Hassan) er Fashi chai....ASAP!


[বাংলা]কারা হেফাজতে রুমানার স্বামী সাইদের মৃত্যু

ঢাকা, ডিসেম্বর ০৫ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- স্ত্রী রুমানা মঞ্জুরকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেপ্তার সাঈদ হাসান কারা হেফাজতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

সোমবার ভোরে সাইদ হাসান সোমবার ভোরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিজন সেলে মারা যান বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।

গত ২৩ নভেম্বর থেকে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

কারা উপমহাপরিদর্শক গোলাম হায়দার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, তার মৃত্যু ‘কার্ডিয়াক ফেইলিয়রে’ বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন।

সাইদ কারাগারে থাকা অবস্থায় মানসিক অস্থিরতায় ছিলেন বলে হায়দার জানান। সাইদকে বাথরুমে পড়ে থাকা অবস্থায় পাওয়া যায় বলে জানান তিনি।

সাইদের আত্মহত্যা করেছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কারা কর্মকর্তা হায়দার বলেন, “ময়না তদন্ত হওয়ার আগে এ বিষয়ে কিছু বলা যাচ্ছে না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক রুমানাকে নির্যাতন চালিয়ে চোখ নষ্ট করে দেওয়ার অভিযোগে গত ১৫ জুন সাইদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গত ৫ জুন তিনি রুমানার ওপর নির্যাতন চালান বলে অভিযোগ রয়েছে। শিক্ষক রুমানা পরে কানাডায় চিকিৎসা নেন। তাদের একটি মেয়ে রয়েছে। [/বাংলা]

http://bdnews24.com/bangla/details.php?cid=2&id=179060&hb=2

lamisa
December 5, 2011, 11:22 AM
i am soooo happy that he died!

nakedzero
December 14, 2011, 12:22 AM
Moderators Disclaimer: The following is an excerpt from someone's personal blog and BanglaCricket makes no claims as the the validity of some of the claims made


http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323511486_3-387363_178653345565024_178590025571356_311386_5841 15172_n1.jpg http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323511509_4-387604_178653235565035_178590025571356_311382_1631 837408_n__1_1.jpg


http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323511526_5-387969_178653298898362_178590025571356_311384_1723 346430_n1.jpg http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323511576_7-389955_178653275565031_178590025571356_311383_1523 247127_n1.jpg


http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323511556_6-388370_178653465565012_178590025571356_311389_6610 89819_n1.jpg http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323511591_8-390780_178653388898353_178590025571356_311387_4155 11872_n1.jpg


http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/zulf23_1323287228_1-386346_285217141514943_230043730365618_744862_1575 124638_n1.jpg http://www.webluncher.com/arifinblog/wp-content/uploads/2011/12/381697_178658462231179_178590025571356_311397_8599 49678_n1.jpg

[বাংলা]নিহতের ছোট ভাই শাওন বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে খোজ নিয়ে জানতে পেরেছি সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে প্রিজন সেলে হাসানের কক্ষে কয়েকজন লোক প্রবেশ করেছিল। ওদের মধ্যে হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট জালাল ছিলেন। তারা প্রায় এক ঘন্টা সময় ব্যয় করে চলে যান। তারা কোন উদ্দেশ্যে সেখানে গিয়েছিলে তা পরিষ্কার নয়। সাঈদের মা কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমার ছেলে প্রিজন সেলে বন্দি ছিল। ওই অবস্থায় কখনই প্যান্ট পড়তোনা। সবসময় লুঙ্গি পড়ে থাকতো। তার প্রশ্ন, ওই রাতে তার ছেলেকে প্যান্ট পরিয়েছিল কারা।

তাহের নাভিদ নামে এক ইরানি যুবকের সাথে ঘনিস্ট মেলামেশার অভিযোগ ছিল সাইদের। প্রথম দিকে রুমানা পরকিয়ার কথা অস্বীকার করে এবং তাহেরদীন নাভেদ নামে কোন যুবকের অস্তিত্ব ও খুজে পাওয়া যায় নি। অথচ ছবিতে দেখুন তাহেরদীন নাভেদের বাহুলগ্না হয়ে রুমানা মঞ্জুর দাঁড়িয়ে আছেন! কি বলবেন এবার???

(ক) মৃত্যুর পর হাসান সাঈদের হাতে, পিঠে ও ঘাড়ে আঘাতের চিহ্ন কেন? সে নিশ্চয়ই জেলখানায় নিজেকে নিজে পিঠায়নি।যদি না পিঠিয়ে থাকে তবে তাকে আঘাত করল কে?

(খ)পুলিশ বলছে,তার মুখে ও গলায় পলিথিন প্যাচানো ছিল এবং পিছনে হাত পা বাঁধা ছিল। হাত পা বাঁধা অবস্থায় একজন লোক কিভাবে মুখে ও গলায় পলিথিন প্যাঁচাতে পারে? এটা কি সম্ভব?

(গ) তাছাড়া পুলিশি হেফাজতে আসামীর কাছে এমন কিছুই থাকেনা যার দ্বারা সে আত্নহত্যা করতে পারে। তাহলে কি এখন থেকে আমরা ধরে নেব, পুলিশ আত্নহত্যা করার জন্য জেল খানায় পলিথিন, দড়ি সহ বিভিন্ন জিনিস পত্র মজুদ রাখে?

(ঘ) হাসান বুয়েটের একজন স্টুডেন্ট। সে ভাল করেই জানে, আত্নহত্যা করলে রুমানার বিরুদ্ধে তার অভিযোগের নৈতিক ভিত্তিটা অনেক দুর্বল হয়ে যাবে। তাছাড়া তার আদরের মেয়ের ব্যাপারটাও তার মাথায় ছিল। সবকিছু বুঝে সে কি কখনো চাইবে আত্নহত্যা করতে?

(ঙ) মৃত সাঈদের হাতে দড়ির দাগ ছিলো। ভাবুন, কেউ কি হাতে দড়ি বেঁধে আত্মহত্যা করে ??

ধরে নিলাম,এটা একটা পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। যদি তাই হয়ে থাকে, তাহলে প্রশ্ন জাগে……

(ক) কেন পুলিশ তাকে হত্যা করল?

(খ) আমরা সবাই জানি, পুলিশের সাথে তার কোন শত্রুতা নেই। তাহলে কাদের স্বার্থে পুলিশ তাকে হত্যা করল?

(গ)পুলিশি হেফাজতে যতগুলো হত্যাকান্ড বাংলাদেশে ঘটেছে তার বেশিরভাগই ঘটেছে রাজনৈতিক কারনে। কিন্তু হাসান সাঈদ তো কোন রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল না। তাহলে কাদের স্বার্থে পুলিশ হাসানকে মেরে ফেলল?

(ঘ) তাছাড়া পুলিশ ও এলাকার লোকজন বলেছে, হাসান সাঈদের সাথে কারো কোন পূর্ব শত্রুতা ছিলনা। তাহলে কেন তাকে জীবন দিতে হল?

(ঙ) তাহলে কি রুমানা মনজুর প্রভাবশালী কেউ? আমরা জানি, সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তজাতিক সম্পর্ক বিভাগের একজন অধ্যাপিকা । একজন অধ্যাপিকার চোখের দৃষ্টি হারানোর জন্য পুলিশ একজন মানুষকে মেরে ফেলবে এটা কি যুক্তিগ্রাহ্য? তাহলে কি ধরে নেব,রুমানার সাথে প্রভাবশালী মহলের কারো সাথে কোন লেনদেন ছিল যারা সব আইন আদালতের উর্ধ্বে?

(চ) তাছাড়া হাসান সাঈদ সরকারের একজন প্রভাবশালী মন্ত্রীর আত্নীয়। রুমানাকে আঘাতের পর এই আত্নীয়ের বাসায় সে কয়েকদিন আত্নগোপন করে ছিল। পুলিশ ভাল করেই জানত, হাসানের সেই প্রভাবশালী আত্নীয়ের কথা। সব কিছু জেনে শুনে পুলিশ তাকে হত্যা করার মত কঠিন পথ বেছে নেবে, এটা অন্তত বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে হাস্যকর। তাহলে কি ধরে নেব,রুমানার পরকীয়ার মদদ দানকারীরা আরো অনেক প্রভাবশালী?

পুলিশি হেফাজতে হাসান সাঈদের মৃত্যুর পিছনে কার কি স্বার্থ সেটা জানার আগে রুমানার ব্যাক্তি চরিত্রের একটু বিশ্লেষন দরকার। রুমানাকে আমাদের সুশীল সমাজ ও কায়েমী স্বার্থের দালাল মিডিয়া একবারে ধোঁয়া তুলসে পাতা হিসেবে উপস্থাপন করেছে। আসলে কি সে একবারে নির্দোষ ছিল? হাসানের অভিযোগগুলো কি একবারে ভিত্তিহীন? চলুন দেখি একটু বিশ্লেষন করি……

(ক) রুমানার মত মেয়েরা আমাদের সমাজের জন্য জীবন্ত বিষফোঁড়া। সে যে ভদ্রতার আড়ালে কত বড় শয়তান সেটা এখন সবাই বুঝতে পারছে। কানাডা যাওয়ার কিছুদিন পরই রুমানা স্বামী ও সন্তানের খোঁজ খবর নেওয়ার ব্যাপারে উদাসীন হয়ে পড়েন। তখন হাসান জানতে পারে ইরানি বংশোদ্ভুত কানাডার নাগরিক তাহেরদিন নাভিদের সাথে রুমানার অনৈতিক সম্পর্কের কথা। দেশে ফেরার পর সে বিষয়টি হাসানের কাছে আরো স্পষ্ট হয়ে উঠে। দেশে ফেরার পর সে দিনভর পরে থাকত ফেসবুক নিয়ে। রুমানা সর্বশেষ গত ৮ই মার্চ ১০.৩১.২৫ সেকেন্ডে নাভিদের কাছে ইমেইল করেন। সে ইমেইলে রুমানা লেখে ” আমি আমার স্বামীর সাথে প্রতারনা করছি।তার মানে আমি খারাপ বা সস্তা মেয়ে নই। তোমার সাথে অবৈধ শারীরিক মেলামেশা করছি বলে মনে করার কোন কারন নেই,আমি খারাপ মেয়ে ।” তাহলে বুঝুন,কত বড় ভদ্রবেশী মুখোশধারী শয়তান সে।

(খ) রুমানা এক ভয়ংকর ডাইনীর নাম। রুমানা যখন সাঈদকে তার জীবন থেকে সরাতে পারছিল না তখনি সে তাকে হত্যার পরিকল্পনা নেয়। রুমানা সাঈদকে বেলের শরবতের মধ্যে ঘুমের ওষধ খাইয়ে দরজা বন্ধ করে বাপের বাড়ি চলে যায়। পরের দিন রুমানার ভাই ফারুক এসে তাকে বাসা থেকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসান সাঈদ এর সর্বশেষ পরিনতি ঐ পরিকল্পনার ধারাবাহিক অংশ বলে তার পরিবারের ধারনা।

(গ) রুমানাকে আঘাতের পর সুশীল মিডিয়া রুমানার সাথে তার ছোট্ট মেয়ের আবেগঘন ছবি চাপায়।আর আমরা আবেগপ্রবন জাতি সেটা দেখেই সত্য মিথ্যা যাচাইয়ের ক্ষমতা হারিয়ে ফেলি। আমরা কি একবারও ভেবে দেখেছি, কে এই ছোট্ট মেয়েটিকে লালন পালন করে বড় করেছে, কে তাকে বাবা হয়েও মায়ের আদর দিয়ে বড় করেছে?

(ঘ ) একবার ভাবুন, কোন সত্যিকারের মা কি পারে তার ৩ বছরের শিশু সন্তানকে রেখে বিদেশ চলে যেতে? রুমানা কেমন মা? কেমন তার মাতৃত্ববোধ? কিসের নেশায় স্বামী ও ৩ বছরের কন্যাসন্তানকে রেখে সে কানাডায় পিএইচডি ডিগ্রীর জন্য ছুটে গিয়েছিল? সন্তানের চাইতে ডিগ্রী কি বড় হয়ে গেল?

(ঙ ) রুমানা কি ডিগ্রীটা তার মেয়ে আরেকটু বড় হলে নিতে পারত না?একটা ছোট্ট মেয়ের প্রতি মায়ের যে দায়িত্ববোধ তার কিছুই পালন করেনি রুমানা।মাতৃত্বের প্রতি তার এই অবজ্ঞাই প্রমাণ করে রুমানা ছিল ব্যাভিচারিনী, নারী জাতির কলঙ্ক।

(চ)হাসান সাঈদের সাথে রুমানার প্রেমের সম্পর্ক ছিল ৭ বছর। হাসান সাঈদ যদি এতই খারাপ হবেন তাহলে রুমানার মত একজন মেধাবী ছাত্রী কোন দুঃখে তার সাথে এত বছর প্রেম করল?

(ছ) হাসান বুয়েটে লেখাপড়া করেছেন। নিজে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ না করে নিজের সিএনজি বিক্রি করে রুমানাকে সেই টাকায় কানাডা পাঠিয়েছেন।যে স্বামী তার স্ত্রীকে এত ভালবাসে সে কি কখনো কোন কারন ছাড়া তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে পরকীয়ার অভিযোগ আনতে পারে? সুশীল মিডিয়া কি এই প্রশ্ন কখনো তুলেছে?

(জ)কেন দেশে ফেরার কয়েকদিন পর রুমানা আবার কানাডা যাওয়ার জন্য হাসানের সাথে ঝগড়া করে? কেন স্বামী হাসানের কথা না শুনে সে আবার বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তে অটল থাকে? কিসের নেশায়? কার টানে? রুমানার এই আচরন কি স্বামী ও সংসারের প্রতি তার দায়িত্ববোধের পরিচয় বহন করে? যে নারী কোন যুক্তিগ্রাহ্য কারন ছাড়া তার স্বামীর বিরুদ্ধচারন করে, যে নারী স্বামী সংসারকে তুচ্ছজ্ঞান করে নিজের চাওয়াকে বড় করে দেখে তাকে কোন বিবেচনায় সুশীল মিডিয়া স্বর্গীয় নারী বানালো সেটা বোধগম্য নয়।

(ঝ)রুমানা যদি এতই ভাল হবেন তবে কেন সে হাসানের সাথে ঝগড়ার পর তাড়াতাড়ি করে মোবাইল থেকে ইরানী যুবকের সব অস্লীল মেসেজ ডিলেট করে দিলেন। কেন ফেইসবুক থেকে সেই ইরানী যুবককে ডিলিট করলেন? এটা কি চোরের মন পুলিশ পুলিশ নয়?

(ঞ)রুমানাকে পাপের পথ থেকে ফেরাতে না পেরে হাসান নিজে ঘুমের বড়ি খেয়ে মরতে ছেয়েছিলেন।তাকে হাসপাতালে ভর্তিও করা হয়। কিন্তু সে বেঁচে যায়।।আমরা কি কখনো নিজেকে প্রশ্ন করে দেখেছি, যে মানুষটি তার স্ত্রীকে ভালবেসে মরতে ও পারে, কতোটুকু সহ্যের সীমা পার হয়ে গেলে সে এমন হিংস্র হতে পারে?

(ট )হাসান বলেছে, রুমানা দুই একবার আপত্তিকর অবস্থায় তার সামনে ধরা পড়ে। হাসান দুই একবার তাকে সতর্ক করেছিল। কিন্তু তারপর ও এসব অভিজাত শ্রেনীর দুষ্ট ব্যাভিচারী মেয়েরা শরীরের কামনার আগুনে ভালবাসার চিরায়ত আহবানকে পায়ের নীচে পিষ্ট করতে দ্বিধাবোধ করেনা। এত কিছুর পরো হাসান যে অনেক ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছিল, তার মৃত্যুর পর সেটার প্রশংসা না করলে তাকে ছোট করা হবে।

যাই হোক, এবার আসি মূল কথায়। কার স্বার্থে হাসানকে মেরে ফেলা হল? চলুন আরেকবার আমরা বিবেক দ্বারা তাড়িত হই।

(ক)হাসানকে মেরে ফেলে অবশেষে চক্রান্তকারীরা পরকীয়াকে সামাজিকভাবে বৈধতা দেওয়ার প্রথম ধাপটা সফলতার সাথে অতিক্রম করল।

(খ) হাসানের মৃত্যুর মাধ্যমে চক্রান্তকারীরা এই মেসেজ দিল যে, এখন থেকে পরকীয়ার প্রতিবাদ করলে সবাইকে হাসানের মত পরিণতি ভোগ করতে হবে।

(গ)হাসানের মৃত্যুর মাধ্যমে অভিজাত সোসাইটির নোংরা নগ্ন গৃহবধুদের যারা নাকি ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা খরচ করে শাহরুখের অনুষ্ঠান দেখে শাহরুখের সাথে নাচবার জন্য পাগল হয়ে যায়, সন্ধ্যা নামলে যারা অভিজাত পাড়ার ক্লাবগুলোতে ভিড় জমায়, তাদের পরকীয়ার ফ্রি লাইসেন্স দিয়ে দেওয়া হল।

(ঘ) হাসানের মৃত্যুর পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে মিডিয়া। সাইদ এর বাবা বলেন, রুমানা মনজুর ছিল আত্মস্বীকৃত ব্যাভিচারিনী। আমার ছেলের মৃত্যুর জন্য দায়ী মিডিয়া।।মিডিয়া ে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা মিসইউজ হয়েছেন। তখন রুমানা মনজুরের বেশকিছু ঘটনার তথ্য প্রমাণ নিয়ে আপনাদের কাছে গিয়েছিলাম। কিন্তু আপনারা বলেছেন আমি ক্রিমিনালের বাবা বড় ক্রিমিনাল।এখন প্রশ্ন হল, মিডিয়া কেন এমন ভূমিকা পালন করল? কেন একজন বাবার মুখ তারা রুদ্ধ করে দিল? আমরা জানি, বাংলাদেশের অধিকাংশ মিডিয়া সুশীল নিয়ন্ত্রিত এবং ভারতের অর্থে পরিচালিত। তাহলে কি আমরা ধরে নেব, সুশীল ও তার দাদা ভাইরা পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশে ভারতের মত পরকীয়ার প্রেমের অবাধ বিস্তার ঘটানোর সুপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে?

(ঙ)রুমানার বাবা বলেন, যখনই ছেলের জামিনের জন্য যেতাম, সেখানে কিছু নারী নেত্রী তার প্রতিবাদ করে আর সবাই,বিশেষ করে মিডিয়া সেটা সমর্থন করে। ঘটনার নেপথ্যে কি আছে আপনারা কখনও তা জানতে চান না। একজন বাবার এই আকুলতা কি আমাদের চোখকে খুলে দেয়না? কেন নারী নেত্রীরা হাসানের বাবাকে জামিন নিতে বাঁধা দেয়? এরা কি সেসব নারী নেত্রী যারা দিনের বেলায় শহীদ মিনারের পাদদেশে নারী অধিকার নিয়ে বড় বড় বক্তৃতা দেয় আর রাতের বেলায় নিজ বাসায় কাজের মানুষকে অমানুষিক অত্যাচার করে? এরা কি সেসব নারী নেত্রী যারা প্রভাবশালী মহলের মনোরঞ্জনের জন্য ইডেন কলেজের মেয়েদের সাপ্লাই দেয়? এরা কি তারা, যারা নিজেদের পাপকে ঢাকতে রুমানার পাপকে সমাজে জায়েজ করতে চায়? আমার মনে হয়, সুশীল সমাজের ধারক ও বাহক এসব নারী নেত্রী হাসান হত্যাকান্ডের সাথে সরাসরি জড়িত।

(চ) আরেকটা ব্যাপার খেয়াল করুন। আর কিছুদিন পর হাসান সাঈদের চূড়ান্ত বিচার শুরু হত। আর এই বিচার শুরু হলে রুমানা মনজুর এবং তার ব্যাভিচারকে সমর্থন দেওয়া মিডিয়া, সুশীল সমাজ এবং মূল চক্রান্তকারীদের অনেকের মুখোশ খুলে যেত। আর চক্রান্তকারীরা এটা খুব ভাল করেই জানত। তাই আমার ধারনা, নিজেদের রক্ষার জন্য বিচারের আগেই তারা পরিকল্পনা করে পুলিশের সহযোগিতায় হাসান সাঈদকে সরিয়ে দিয়েছে।

(ছ) হাসান সাঈদের বাবা বলেন, রুমানা মনজুরের সব কিছু ঠিক আছে। এখনও সে সব দেখতে পায়। কিন্তু মিডিয়ার সামনে আসলে সে চোখে কালো চশমা দিয়ে আসে। এই কথা কি ইঙ্গিত দেয়? রুমানা কি আসলে দেখতে পায় না? আমরা জানি, রুমানার চোখের ডাক্তার তার আত্নীয়। তাহলে কি তার আত্নীয়ের কারসাজিতে কোন False মেডিকেল রিপোর্ট দিয়ে সবাইকে বিভ্রান্ত করা হয়েছে।

(জ)রুমানা সাঈদের ঘটনাটা নিয়ে আড়াল থেকে কেউ যে গুটি নেড়েছে তা সহজেই বুঝা যায়। কারন মূল ঘটনা ঘটার এক সপ্তাহ পরে সেটা মিডিয়ার নজরে আসে। একবার ভাবুন, ঢাবির একজন শিক্ষিকা মারা গেল সেটা এক সপ্তাহ মিডিয়া বা ঢাবি কতৃপক্ষ কেউ কিভাবে জানল না? জানলে তারা চুপ করে ছিল কেন? আসলে সবাই সব কিছু জানত। কিন্তু যখনি মূল ষড়যন্ত্রকারীরা এক্টিভ হল তখনি তারা চায়ের কাপে ঝড় তুলল

সব কিছু বিচার করলে একটা বিষয় স্পষ্ট। এই ঘটনা নিছক হত্যাকান্ড নয়। হাসান সাঈদ চলে গেলেন। কিন্তু আমাদের জন্য রেখে গেলেন এক কঠিন ও ভয়াবহ ভবিষ্যতের আগাম সতর্ক বার্তা। এখনি পরকীয়ার বিরুদ্ধে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তা না হলে, এই বিষ খুব দ্রুত সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়বে। তাই চলুন, আমরা সবাই মিলে পরকীয়ার বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি।[/বাংলা]

SOURCE (http://www.webluncher.com/arifinblog/archives/310)


Now that's weird. Which one is the truth !!

F6_Turbo
December 14, 2011, 01:11 AM
I don't care what the truth is, but if that email is for real..f-ing hell, she sounds pathetic.

I am not being complaining...HAHAHAH

PoorFan
December 14, 2011, 01:23 AM
[বাংলা]
হোম (http://new.ittefaq.com.bd/news/index/61941/2011-12-14)http://new.ittefaq.com.bd/addons/themes/ittefaq/img/arrow_menu.gif প্রথম পাতা (http://new.ittefaq.com.bd/news/category/1/2011-12-14)http://new.ittefaq.com.bd/addons/themes/ittefaq/img/arrow_menu.gif ‘চোখ বন্ধ কর, গহনা পরাবো’ বলেইস্ত্রীর কব্জি কেটে ফেলল স্বামী
‘চোখ বন্ধ কর, গহনা পরাবো’ বলেইস্ত্রীর কব্জি কেটে ফেলল স্বামী (http://new.ittefaq.com.bd/news/view/61941/2011-12-14/1)

লেখক: আবুল খায়ের | বুধ, ১৪ ডিসেম্বর ২০১১, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪১৮

http://new.ittefaq.com.bd/uploads/news_image/2011-12-14_1323794887.jpg হাওয়া আক্তার ওরফে জুঁইয়ের (২০) ‘অপরাধ’ স্বামীর নিষেধ স্বত্তেও পড়াশোনা করা। বিয়ের পরপরই অশিক্ষিত স্বামী তাকে জানিয়ে দেয় আর পড়াশোনা করা যাবে না। কিন্তু লেখাপড়ার প্রতি অদম্য টানে জুঁই নরসিংদী সরকারি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তি হয়। নির্বাচনী পরীক্ষায়ও ভাল ফল করে সে।
স্বামীর নিসেধ স্বত্তেও পড়াশোনা করার খেসারত দিতে হলো জুঁইকে ডান হাতের কব্জি দিয়ে। সে যাতে আর লিখতে না পারে সে জন্য ডান হাতের কব্জি কেটে নেয় ঈর্ষান্বিত আবুধাবি প্রবাসী স্বামী রফিকুল ইসলাম। গত ৪ ডিসেম্বর সকালে ক্যান্টনমেন্ট থানার জিয়া কলোনীতে রফিকের দুলাভাইয়ের বাসায় এ পৈশাচিক ঘটনা ঘটে। ডান হাতের আঙ্গুলগুলো হারিয়ে জুঁই নরসিংদী পৌর এলাকার ভেলানগরের বাসায় কষ্টকর দিন কাটাচ্ছে। সকাল-সন্ধ্যা সহপাঠীরা এসে তাকে সান্তনা দিচ্ছে। গত সোমবার ইত্তেফাকের প্রতিনিধি জুঁইয়ের ভেলানগর বাসায় গিয়ে দেখতে পান বুকের উপর ব্যান্ডেজ বাধা ডান হাতটি রেখে শুয়ে আছে সে। অসহায় শিশুর মতো ফ্যালফ্যাল দৃষ্টিতে তাকিয়ে দেখছিল এই প্রতিনিধিকে।
ঘটনার কথা জিজ্ঞেস করার সঙ্গে সঙ্গেই কেঁদে ফেলে সে। বলতে থাকে স্বামীর সংসার, পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ ও স্বামীর নিষেধের কথা। হাত কেটে নেয়ার প্রসঙ্গ আসতেই হাউমাউ করে কেেঁদ ফেলে সে। বলে তার স্বামী মানুষ নামের একটা নরপশু।
জুঁই জানায়, রফিকের দুলাভাইয়ের বাসায় বিদেশ থেকে আনা স্বর্ণের নেকলেসও হাতের বালা পড়ানোর কথা বলে সে বর্বরোচিত ঘটনা ঘটায়। আবুধাবি থেকে এসে সে আমার সঙ্গে ভালবাসা আর প্রেমের নানা ছন্দে কথা বলতে থাকে। যা হিন্দি সিনেমাকে হার মানিয়ে দেয়।
যেভাবে কব্জি কেটে নেয় রফিক
তিন বছর আগে জুঁইয়ের সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার নুরজাহানপুর গ্রামের বাসিন্দা বাতেন মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম রফিকের সঙ্গে বিয়ে হয়। তখন জুই মাত্র এসএসসি পাশ করেছে। বিয়ের পরপরই রফিক সাফ জানিয়ে দেয় আর লেখাপাড়া করা যাবে না । এর কিছুদিন পরই রফিক চলে যায় আবুধাবি। জুঁইয়ের বাবা ইউসুফ মিয়া একজন তাঁতশ্রমিক। দরিদ্র পরিবারের মেয়ে জুঁইয়ের ছেলেবেলা থেকেই লেখা পড়ার করার স্বপ্ন। মেয়ের লেখাপড়ার প্রতি প্রবল আগ্রহের কথা জানতেন ইউসুফ মিয়া। আর্থিক দৈন্যদশার মধ্যেও মেয়ের পড়াশোনার খরচ যুগিয়েছেন তিনি।
স্বামীর সংসারে এসে লেখাপড়ার নেশায় জুঁই নরসিংদী সরকারি কলেজে এইচএসসিতে ভর্তি হয় মানবিক বিভাগে। বর্তমানে সে শেষ বর্ষের ছাত্রী। অশিক্ষিত রফিক স্ত্রীর কলেজে ভর্তির সংবাদ শুনেই মারাত্মক ক্ষিপ্ত হয়। রফিকের আত্নীয় স্বজনও বিষয়টি ভালচোখে দেখেননি। টেস্ট পরীক্ষার আগে রফিক তার শ্বাশুড়ি পারভীন বেগমকে জানিয়ে দেয় টেস্ট পরীক্ষা অংশ গ্রহণ করলে জুঁইকে পুড়িয়ে হত্যা করা হবে। এতো প্রতিকূলতার মধ্যেও টেস্ট পরীক্ষায় অংশ নেয় জুঁই। স্বামী যখন তাকে মানা করতো আর পড়াশোনা করা যাবে না তখন জুই স্বামীকে বলতো, তুমি ভয় পেয়ো না। মেয়েদের স্বামী একজনই। আমি এইচএসসি পর্যন্ত পড়বো। তবুও মন গলেনি পাষণ্ড রফিকের।
পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী জুঁইকে তার ননদ নাইমা জানায়, তোমার স্বামী বিদেশ থেকে মোবাইল ফোন, স্বর্ণালংকার ও কসমেটিকস পাঠিয়েছে। তুমি বাসায় এসে নিয়ে যাও। ননদের স্বামী সেনাবাহিনীর কর্পোরাল মো. শফিকুল ইসলামও অনুরূপ সংবাদ জুঁইকে দেয়।
১ ডিসেম্বর জুঁই নরসিংদী থেকে স্বামীর পাঠানো জিনিসপত্র নিতে জিয়া কলোনীর ননদের বাসায় যায়। তিন দিন অতিবাহিত হলেও জুঁইকে কোন জিনিসপত্র দেয়া হয়নি। এ বিষয়ে সে ননদের কাছে জিজ্ঞেস করলে তিনি জানান, আর একদিন পরই তোমার জিনিসপত্র দিয়ে দিবো।
কান্না জড়িত কণ্ঠে জুঁই বলে ‘ ৪ ডিসেম্বর সকাল ৭টায় ঘুম থেকে উঠে দেখি বিছানার সামনে রফিক দাঁড়ানো। জিজ্ঞেস করলাম, তুমি কখন আসছো। উত্তরে রফিক বলে, এইতো কিছুক্ষণ আগে আবুধাবি থেকে আসলাম। তোমার সঙ্গে একা কথা আছে বলে রফিক তাকে একটি কক্ষে নিয়ে যায়।’
অনেক দিন পর স্বামীকে দেখে আনন্দে ভরে উঠে জুঁইয়ের মন। চরম আবেগে পাশের কক্ষে দুইজনে গিয়ে বসে। এ সময় নাইমা ও তার স্বামী শফিকুল ইসলামসহ পরিবারের অন্য কক্ষে ছিল। রফিক কক্ষের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দেয়। রফিক জুঁইকে বলে তুমি তাহলে ঠিকই পরীক্ষা দিয়েছো। চোখ বন্ধ করো, তোমাকে এমন পুরস্কার দিবো, যা তুমি কখনো কল্পনা করতে পারবে না। স্বামীর এমন মধুর কথা শুনে আবেগে জুঁই চোখ বন্ধ করে ফেলে। এ সুযোগে ওড়না দিয়ে জুইয়ের দুই চোখ টাইট করে বেঁধে ফেলে রফিক। স্কচটেপ দিয়ে বন্ধ করে দেয় মুখ। এরপর রফিক জুঁইকে বলে, তুমি ডান হাত লম্বা করো। জুই ডান হাত লম্বা করার সঙ্গে সঙ্গে ধারাল চাপাতি দিয়ে কোপ দেয় রফিক। এক কোপেই জুঁইয়ের কব্জি হাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। মুখে স্কচটেপ থাকায় জুঁই চিত্কার করতে পারেনি। মেঝে ভেসে যায় রক্তে। রক্তাক্ত জুঁইকে ঐ কক্ষের বারান্দায় ফেলে রাখে রফিক। কিছুক্ষণ পর ননদ ও তার স্বামী এসে রক্ত পরিস্কার করে। জুঁইকে পরে উত্তরার একটি প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় তারা। সেখানে ডাক্তার ডান হাতে কবজি কিভাবে কেটেছে জুঁইয়ের কাছে জানতে চাইলে সে পুরো ঘটনা প্রকাশ করে। এ সময় ননদ ও তার স্বামী দ্রুত হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। জুইকে ডাক্তার দ্রুত পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করে।
৬ ঘণ্টার মধ্যে বিচ্ছিন্ন
আঙ্গুল পাওয়া গেলে
জোড়া লাগানো সম্ভব হতো
জুঁইকে পঙ্গু হাসপাতালের সার্জন জানান, ডান হাতের পাঁচটি আঙ্গুল ৬ ঘণ্টার মধ্যে পুনরায় ঐ স্থানে জোড়া লাগানো হলে আগের মত হয়ে যাবে। এই কথা শুনে জুঁইয়ের বাবা ও অভিভাবকরা ছুটে যান জিয়া কলোনীর ১০৭/৫ নম্বর ভবনের তৃতীয় তলায় শফিকের বাসায়। রফিকের হাতে পায়ে ধরে জুইয়ের বাবা বলেন, বাবা তুমি আমার মেয়ের আঙ্গুলগুলো দাও। উত্তরে রফিক শ্বশুরকে বলে আঙ্গুলগুলো উত্তরার ঐ হাসপাতালের ডাক্তারের কাছে রয়েছে। এ কথা শুনেই সবাই সেখানে ছুটে যান। তখন ডাক্তার বলেন, ‘আমার কাছে আঙ্গুল নেই।’ পুনরায় তারা আবার জিয়া কলোনীতে ছুটে আসেন। এখানে এসে তারা চিত্কার শুরু করলে আশপাশের লোকজন ছুটে আসেন। ঘাতক রফিক ডাস্টবিন থেকে জুইয়ের বৃদ্ধা আঙ্গুল ব্যাতীত অন্য চারটি আঙ্গুল খুঁজে বের করে। পরে তা শ্বশুরের হাতে তুলে দেয়। পরে তারা চারটি আঙ্গুল নিয়ে পঙ্গু হাসপাতালে যায়।
সময় ১০ ঘণ্টার বেশি অতিবাহিত হওয়ায় চারটি আঙ্গুল জোড়া লাগানো সম্ভব হয়নি। ডাক্তার পরীক্ষা করে দেখেন আঙ্গুলের কোষগুলো মারা গেছে। পঙ্গু হাসপাতালে দুইদিন চিকিত্সাধীন থাকে জুঁই। পরে ছাড়পত্র নিয়ে নরসিংদী চলে যায় জুঁই। পরদিন ক্যান্টনমেন্ট থানায় রফিককে আসামি করে এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ ঘাতক রফিককে গ্রেফতার ও জুঁইয়ের কবজি কাটায় ব্যবহুত চাপাতিটি উদ্ধার করেছে।
গুলশান জোনের ভারপ্রাপ্ত উপ-পুলিশ কমিশনার নিজামুল হক মোল্লা বলেন, পাষণ্ড রফিককে গ্রেফতার এবং ঘটনার আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। মহানগর পুলিশ কমিশনার বেনজির আহমেদ বলেন, জুইয়ের বর্বরোচিত ঘটনার আরো সুষ্ঠুভাবে তদন্তের জন্য দ্রুত বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
জুইকে বাড়ি নিয়ে আসার সংবাদ পেয়ে তার নিজ কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, সাংবাদিক, মানবাধিকার সংস্থার প্রতিনিধি, আশপাশের লোকজনসহ শহরের বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষের ব্যাপক ভির জমে করে তাদের বাসায়। লোমহর্ষক এ ঘটনা জানার পর নরসিংদীতে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। সহপাঠিরা এর প্রতিবাদ জানায়। নরসিংদী জেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরাম জেলা শাখার নেত্রী এমডিএস এর নির্বাহী পরিচালক ও মানবাধিকার সংগঠক ফাহিমা খানম, নারী নির্যাতনকারী বর্বর স্বামী রফিকুল ইসলামসহ সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে ঐ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে। নির্যাতিত নারী ও তার পরিবারের পক্ষে সকল প্রকার সহযোগিতা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দেন। এদিকে গত রবিবার নরসিংদী জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা উন্মে মাহমুদা খানম, মাদারস ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি এমডিএস-এর প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী পরিচালক সাংবাদিক ফাহিমা খানম, জেলা মহিলা বিষয়ক মহিলা অধিদপ্তরের নাজমা বেগম ও অন্যান্যরা নির্যাতিত কলেজ ছাত্রী অসুস্থ জুইকে দেখতে যান।
[/বাংলা]


Daily Ittefaq (http://new.ittefaq.com.bd/news/view/61941/2011-12-14/1)


How on earth these kind of people get raised by their family?

F6_Turbo
December 14, 2011, 01:54 AM
1. She really shouldn't have ignored his threats/demands with regards to her continuing her studies. Not saying I agree with him(not at all), but when he and his entire family were against it, Jui and her family should have sat down and tried to resolve the matter - not ignore his threats. Either get them to see reason, or else stop her education for the sake of the marriage, if both parties refused to still compromise, they should have dissolved the marriage. Instead we now have this poor girl both physically and mentally scarred for life.

2. Domestic violence in Bangladesh - it really is such a disgusting thing, and the really sad part is, how big a role the mother in laws play in it. At times, they are the chief architects of the torture(which is really strange, because these women too were newly weds at one time, and more importantly many of them have daughters who will someday have to be married off, and live in an extended family).

3. Glad he was caught, now that the media has gotten hold of the matter, and local groups, he will pay a steep price(not steep enough) but this really is about educating our society, not law enforcement.

I've worked in Emergency Rooms/A&E in 3 different countries now, and some of the scenes as far as domestic violence is concerned would read better as horror stories. It almost always boils down to power, and disrespect.

RazabQ
December 14, 2011, 02:06 AM
About the blog on Hasan Saeed, it seems the dude who wrote it was himself cheated upon. All this planning and conspiracy so that infidelity is institutionalized. Sigh, even if both hands were clapping together ([বাংলা]এক হাতে তালি বাজে না [/বাংলা]) nothing justifies domestic violence.

AsifTheManRahman
December 14, 2011, 02:23 AM
That guy looks like Bruno Mars.

lamisa
December 14, 2011, 10:50 AM
WTF? this shows the cheap mentality of the writer! because rumana is a woman, doesn't she have the rights to study abroad to attain a phD? and y is the writer being so sympathetic towards this animal? what he did is in no way justifiable! if she had tried to poison him, why didn't he file a case against her? why didn't he get divorced with her if she was having an extra marital affair? both this syed guy and the writer are pathetic idiots!

simon
December 14, 2011, 11:41 AM
this is aweful.
no doubt that this guy Saeed is a disgusting animal but Rumana is not what many of us thought.

nakedzero
December 14, 2011, 12:23 PM
WTF? this shows the cheap mentality of the writer! because rumana is a woman, doesn't she have the rights to study abroad to attain a phD? and y is the writer being so sympathetic towards this animal? what he did is in no way justifiable! if she had tried to poison him, why didn't he file a case against her? why didn't he get divorced with her if she was having an extra marital affair? both this syed guy and the writer are pathetic idiots!


Lamisa you just have broken my heart http://l.yimg.com/us.yimg.com/i/mesg/emoticons7/12.gif

simon
December 14, 2011, 12:50 PM
WTF? this shows the cheap mentality of the writer! because rumana is a woman, doesn't she have the rights to study abroad to attain a phD? and y is the writer being so sympathetic towards this animal? what he did is in no way justifiable! if she had tried to poison him, why didn't he file a case against her? why didn't he get divorced with her if she was having an extra marital affair? both this syed guy and the writer are pathetic idiots!

I'd rather ask the same type of question to the woman:

why didn't she get divorced with him if he has been torturing her for years?
why didn't she get divorced with him if she was into some other man(btw that irani guy has to be a lot younger than her)

By looking at this lady's life style & her education+profession+family back ground, it's clear that she isn't like some of those innocent women in BD we will get beaten up by their husband but still won't go for a divorce thinking "Shomaj ki bolbe?"

F6_Turbo
December 14, 2011, 01:04 PM
By looking at this lady's life style & her education+profession+family back ground, it's clear that she isn't like some of those innocent women in BD we will get beaten up by their husband but still won't go for a divorce thinking "Shomaj ki bolbe?"

Don't want to get into this morality debate, which is what sadly this has become. But I completely disagree with you with the bit I've quoted.

Despite the myth that the rich and famous in Bangladesh get divorced willy-nilly, it is in fact the poor who go through divorce at a higher rate. The rich/educated have to think about shomaj - unlike your rickshawallah or your truck driver. The rich woman has to think of the prestige of her family, and think of her kids...their future...her future...financial considerations.

Domestic violence in Bangladesh is just as prevalent in the 'higher society' - but these women can't run out into the streets and make a scene like your bua or security guards wife.

Once again, I am offering up no excuses for infidelity - just saying, I disagree that because you are educated or from a well to do family, getting a divorce is easier for you.

CricketPagolChele
December 14, 2011, 02:04 PM
WTF? this shows the cheap mentality of the writer! because rumana is a woman, doesn't she have the rights to study abroad to attain a phD? and y is the writer being so sympathetic towards this animal? what he did is in no way justifiable! if she had tried to poison him, why didn't he file a case against her? why didn't he get divorced with her if she was having an extra marital affair? both this syed guy and the writer are pathetic idiots!

Saeed khob-e karap lok, tar theke karap lok prithibite ar hote pare na, mene nilam. He could have been tried in court, but not killed in jail like this. Rumana "Dhoa tolshi pata" na, jodi hoto Saeed-ke aibhabe hotta kora hoto na. Rumana and her family knew "gho ghataile dorghondo ber hobe".

Does it fall under so called "Women Rights" to have sex with other MEN while having husband and a family? No I am not basing just on this email, and there is rumur that she got her eye sight back, atleast on one eye.

If she had so many problems with her husband, why didnt she leave him? Or was she looking for "Buy 1 get 1 free" deal?. Sounds rude, but its the truth.

simon
December 14, 2011, 02:24 PM
Don't want to get into this morality debate, which is what sadly this has become. But I completely disagree with you with the bit I've quoted.

Despite the myth that the rich and famous in Bangladesh get divorced willy-nilly, it is in fact the poor who go through divorce at a higher rate. The rich/educated have to think about shomaj - unlike your rickshawallah or your truck driver. The rich woman has to think of the prestige of her family, and think of her kids...their future...her future...financial considerations.

Domestic violence in Bangladesh is just as prevalent in the 'higher society' - but these women can't run out into the streets and make a scene like your bua or security guards wife.

Once again, I am offering up no excuses for infidelity - just saying, I disagree that because you are educated or from a well to do family, getting a divorce is easier for you.

actually I didn't mean the rickshawala or truck driver wife but I was talking about women regardless the society or class who are not mentally strong or don't have the education or job to depend on themselves so that if they get divorced they can still survive.
so this lady Rumana who looks to be modern enough, very well educated & got a job doesn't belong to the category I mentioned above.

Saeed khob-e karap lok, tar theke karap lok prithibite ar hote pare na, mene nilam. He could have been tried in court, but not killed in jail like this. Rumana "Dhoa tolshi pata" na, jodi hoto Saeed-ke aibhabe hotta kora hoto na. Rumana and her family knew "gho ghataile dorghondo ber hobe".

Does it fall under so called "Women Rights" to have sex with other MEN while having husband and a family? No I am not basing just on this email, and there is rumur that she got her eye sight back, atleast on one eye.

If she had so many problems with her husband, why didnt she leave him? Or was she looking for "Buy 1 get 1 free" deal?. Sounds rude, but its the truth.

you pretty much explained what I had in my mind.

PoorFan
December 15, 2011, 03:14 AM
Does it fall under so called "Women Rights" to have sex with other MEN while having husband and a family? No I am not basing just on this email, and there is rumur that she got her eye sight back, atleast on one eye.

No, having extra marital relations does not fall under "Women's Rights", however, assume that allegation on her is true, I would ask you "does it fall under so called "Husband's Rights" to crush one's eye or chop off limbs or head or put on fire for her crime? There is law and ways to settle such critical family problem, nowhere near to a happy end but considerably best for both, but avoiding worst. And what is that rumor suppose to mean to you? She must be extremely lucky if she got back her sight, be it one eye or both, does it lessen the brutality that man committed? Same goes to that man, as its seems he got killed, is this killing also be justifiable because he committed such crime to her? If not, then I hope you get my point.


If she had so many problems with her husband, why didnt she leave him? Or was she looking for "Buy 1 get 1 free" deal?. Sounds rude, but its the truth.
Where did you find that truth? Do we personally know their private life since they got married for 7-8 years? Is there any claim from her husband or so called rumor that she was involved extra marital relations while living in Bangladesh for long? If not, that means, probebly their relationship got to a breaking point for whatever reasons over the years, which we dont know, let alone in detail. Hence from that common sense POV, I would ask you not to bring those absurd guess, claiming as truth.

CricketPagolChele
December 15, 2011, 11:18 AM
No, having extra marital relations does not fall under "Women's Rights", however, assume that allegation on her is true, I would ask you "does it fall under so called "Husband's Rights" to crush one's eye or chop off limbs or head or put on fire for her crime? There is law and ways to settle such critical family problem, nowhere near to a happy end but considerably best for both, but avoiding worst. And what is that rumor suppose to mean to you? She must be extremely lucky if she got back her sight, be it one eye or both, does it lessen the brutality that man committed? Same goes to that man, as its seems he got killed, is this killing also be justifiable because he committed such crime to her? If not, then I hope you get my point.


Where did you find that truth? Do we personally know their private life since they got married for 7-8 years? Is there any claim from her husband or so called rumor that she was involved extra marital relations while living in Bangladesh for long? If not, that means, probebly their relationship got to a breaking point for whatever reasons over the years, which we dont know, let alone in detail. Hence from that common sense POV, I would ask you not to bring those absurd guess, claiming as truth.

Sir, I think you didnt have the time to read my first para, I clearly mentioned
[Saeed khob-e karap lok, tar theke karap lok prithibite ar hote pare na, mene nilam. He could have been tried in court, but not killed in jail like this. Rumana "Dhoa tolshi pata" na, jodi hoto Saeed-ke aibhabe hotta kora hoto na. Rumana and her family knew "gho ghataile dorghondo ber hobe"]. I never said it was anyones right to harm any other human being.

Sir, onek kichoy bola jai, but again I have to say "Gho ghatabo na".
The way you have concluded about me or my post, I can conclude same about you that you are supporting the murder of Mr. Saeed in a jail. He could have been tried in the court of law.

Sir, Canada te ekto khoj khobor koren before you write. Onek tottho paben, eta internet-er jog,

bujhee kom
December 16, 2011, 12:22 AM
Great clear and to the point thoughts Turbo da! I really appreciate everything you said here, every point you made.


1. She really shouldn't have ignored his threats/demands with regards to her continuing her studies. Not saying I agree with him(not at all), but when he and his entire family were against it, Jui and her family should have sat down and tried to resolve the matter - not ignore his threats. Either get them to see reason, or else stop her education for the sake of the marriage, if both parties refused to still compromise, they should have dissolved the marriage. Instead we now have this poor girl both physically and mentally scarred for life.

2. Domestic violence in Bangladesh - it really is such a disgusting thing, and the really sad part is, how big a role the mother in laws play in it. At times, they are the chief architects of the torture(which is really strange, because these women too were newly weds at one time, and more importantly many of them have daughters who will someday have to be married off, and live in an extended family).

3. Glad he was caught, now that the media has gotten hold of the matter, and local groups, he will pay a steep price(not steep enough) but this really is about educating our society, not law enforcement.

I've worked in Emergency Rooms/A&E in 3 different countries now, and some of the scenes as far as domestic violence is concerned would read better as horror stories. It almost always boils down to power, and disrespect.

bujhee kom
December 16, 2011, 12:30 AM
[বাংলা]তিন বছর আগে জুঁইয়ের সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার নুরজাহানপুর গ্রামের বাসিন্দা বাতেন মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম রফিকের সঙ্গে বিয়ে হয়।[/বাংলা]

Ai hai eidato amader gramer kaser loke dekhi....Ei Rofikkar Fashi hoke plain and simple....Make example out of giving these scumbags the maximum death sentences....We have two women ruling our country for the last 20 some years, how can we, our government, the PM Sheikh Hasina, the opposition leader Khaleda Zia stay mute, quiet when our women in BD are still, today getting this kind of abuse/torture for trying to educate herself??? Hang this scumbag...don't feed him in Jail...and Suspend and sack and kick out that Habildar Dulabhai of the scumbag from the Army for being a criminal himself, accessory to this and not dpoing anything to prevent it!!! And the woman too, the habildar's wife send her to harsh labor prison!

bujhee kom
December 16, 2011, 12:45 AM
And now to the DU asst professor Rumana and her now murdered scumbag husband Sumon Syeed....that e-mail..I don't what to say...totally agree with Turbo da again, if she really wrote that it is the uttermost pathetic of a letter...what an embarrasment for us if this is how present herself, even in a private e-mail to her lover, I am so embarrassed to even repeat this, this woman thinks she is the queen in her country?? Anyway, I won't say anyhting anymore..

About Saeed Sumon, he deserved a death sentence, but not murdered like this behind the cell's enclosed facilty...Did the Chief of Jail Authority ever step down in BD?Ever take responsibilty of anybody that is in his and his men's custody....does he or his predesasors (spell, I mean to say the ones that served in that position before him) ever know the word resposibilty or accountibilty (spell) in their whole upbringing/education and lives? This is same as screaming at a think DUMB wall...in a system and order, in a place like BD where the Presidents and his whole family get wiped out, another president got soaked with bullets in Chittagong several years later, where there are leaders of the nation get murdered in the same prison system and the killers eat free, how can one/I even think of fair justice and or protection for a criminal in the Police/Prison Authority's custody!! The Prison Authority and the Police are both run by criminals like everything in our lives...everything is ternished...every family has a criminal and a priest ..we are saturated with sins, crimes, meeknesss and unjustice! (please bhais and apus, do not take it personally, it's just an expression, my family has a lot of criminals, but I know many of my BC bros and apus are indeed from good, peaceful families, unlike me)

bujhee kom
December 16, 2011, 12:58 AM
Some moron I think wrote these...Utter garbage....

[বাংলা](গ)পুলিশি হেফাজতে যতগুলো হত্যাকান্ড বাংলাদেশে ঘটেছে তার বেশিরভাগই ঘটেছে রাজনৈতিক কারনে। কিন্তু হাসান সাঈদ তো কোন রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল না। তাহলে কাদের স্বার্থে পুলিশ হাসানকে মেরে ফেলল?

(ঘ) তাছাড়া পুলিশ ও এলাকার লোকজন বলেছে, হাসান সাঈদের সাথে কারো কোন পূর্ব শত্রুতা ছিলনা। তাহলে কেন তাকে জীবন দিতে হল?

(ঙ) তাহলে কি রুমানা মনজুর প্রভাবশালী কেউ? আমরা জানি, সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তজাতিক সম্পর্ক বিভাগের একজন অধ্যাপিকা । একজন অধ্যাপিকার চোখের দৃষ্টি হারানোর জন্য পুলিশ একজন মানুষকে মেরে ফেলবে এটা কি যুক্তিগ্রাহ্য? তাহলে কি ধরে নেব,রুমানার সাথে প্রভাবশালী মহলের কারো সাথে কোন লেনদেন ছিল যারা সব আইন আদালতের উর্ধ্বে?

(চ) তাছাড়া হাসান সাঈদ সরকারের একজন প্রভাবশালী মন্ত্রীর আত্নীয়। রুমানাকে আঘাতের পর এই আত্নীয়ের বাসায় সে কয়েকদিন আত্নগোপন করে ছিল। পুলিশ ভাল করেই জানত, হাসানের সেই প্রভাবশালী আত্নীয়ের কথা। সব কিছু জেনে শুনে পুলিশ তাকে হত্যা করার মত কঠিন পথ বেছে নেবে, এটা অন্তত বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে হাস্যকর। তাহলে কি ধরে নেব,রুমানার পরকীয়ার মদদ দানকারীরা আরো অনেক প্রভাবশালী? [/বাংলা]

bujhee kom
December 16, 2011, 01:02 AM
This Taher Bin Navid probably a mess right now...Miah kiser moddhe gia dhukso, ki trouble eibar bujhba! Ahmedinazad aar Rafsanjaani-ke ami boila dimu! Iran-e aar firay jawa lagbo naa!

PoorFan
December 16, 2011, 01:39 AM
Sir, I think you didnt have the time to read my first para, I clearly mentioned ... I never said it was anyones right to harm any other human being.
Feel free not to call me Sir please, I am not worth for that.

Yes, I did read your entire post, not only once for sure, but you didnt shy taking cheap shot on "Women's rights" for one's possible misdeed. That is something totally uncalled for.

Sir, onek kichoy bola jai, but again I have to say "Gho ghatabo na". ...
Sir, Canada te ekto khoj khobor koren before you write. Onek tottho paben, eta internet-er jog,
Well, You are doing exactly the opposite in fact, it seems ugly stories has taken too much of your head, ignoring 365 days a year long one's daily and private file. If I ever need to look for any of those garbage on internet, I wont hesitate for a moment of such wise advise.