View Single Post
  #76  
Old October 10, 2011, 08:03 AM
Naimul_Hd's Avatar
Naimul_Hd Naimul_Hd is offline
Cricket Guru
 
Join Date: October 18, 2008
Location: Global City of Australia
Favorite Player: Shakib, Mashrafe
Posts: 13,383

বাংলাদেশের প্রেরণা মুশফিক


স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্ট ফোর.কম
ঢাকা: মুশফিকুর রহিম বাকপটু হলেও খেলার আগের দিন নির্বাক হয়ে যেতেন। সংবাদ মাধ্যমে কোন কথা বলতেন না। তাকেই এখন ঘটা করে সংবাদ সম্মেলনে খেলা নিয়ে বলতে হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ক্রিকেট সিরিজ শুরুর আগের দিন জাতীয় দলের অধিনায়ক মূল্যবান অনেক কথাই বলেছেন। গুরুত্ব দিয়েছেন পারফরমেন্সের ওপর। অধিনায়কের মতে,‘প্রস্তুতি যতই ভালো হোক কেন্দ্রে গিয়ে পারফর্ম করতে না পারলে কোন মূল্য থাকবে না।’ সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকের প্রশ্ন উত্তর তুলে ধরা হলো।

প্রশ্ন: অধিনায়ক হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আপনার অভিষেক হতে যাচ্ছে। অনুভুতি কেমন?

মুশফিক: হ্যাঁ অধিনায়ক হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আমার অভিষেক হতে যাচ্ছে। অনেক গর্বের বিষয়। জিম্বাবুয়েতে যাওয়ার আগে আমাদের প্রস্তুতিতে একটু ঘাটতি ছিলো। এখানে সেই ঘাটতি নেই। আমরা অনেকগুলো প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলেছি। ব্যাটসম্যানরা রান পেয়েছেন। বোলাররাও মোটামুটি ভালো কররেছে। ধারাবাহিকতা রাখতে পারলে সিরিজ থেকে ভালো ফলাফল আসতে পারে।

প্রশ্ন: মুশফিক আপনি তো সিরিজের আগে কথা বলতেন না। এখন বলতে হচ্ছে। আপনি প্রস্তুত ছিলেন?

মুশফিক: হ্যাঁ আগে কথা বলতাম না। তবে যেদিন থেকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তখন থেকে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছি। আমার মনে হয় যে কোন অবস্থায় মানিয়ে নিতে পারলে ভালো হয়। আগে থেকেই মানসিক প্রস্তুতি ছিলো আমাকে খেলার আগের দিন কথা বলতে হবে। আশা করি কোন সমস্যা হবে না।

প্রশ্ন: এই সিরিজে আপনার এবং দলের প্রত্যাশা কি?

মুশফিক: শেষ সিরিজে প্রত্যাশা মতো দল ভালো খেলতে পারেনি। এই সিরিজে চেষ্টা থাকবে যাতে দল হিসেবে আমরা পারফর্ম করতে পারি। ফলাফল ভালো করতে পারি। ব্যাটসম্যানরা যাতে অনেক রান করে, বোলাররা উইকেট নেয় আর ফিল্ডাররা ভালো ফিল্ডিং করে। এটাই।

প্রশ্ন: অধিনায়ক হিসেবে বাড়তি চাপ মনে হচ্ছে?

মুশফিক: আন্তর্জাতিক খেলায় আপনি অধিনায়ক হন বা না হন, প্রত্যেকটা খেলোয়াড়ের জন্য বিশাল বড় একটা চাপ। এই সিরিজে আমাদের জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। হোমে খেলা, আমরা যদি ভালো খেলতে পারি তা হলে দর্শকদের সমর্থন পাওয়া যাবে। উইকেটেরও সুবিধা পাওয়া যাবে। আমার মনে হয় ইতিবাচক ভাবে দেখলে ভালো হবে। সব সময় আমরা নেতিবচক চিন্তা করি। আমরা যদি ইতিবাচক ভাবে চিন্তা করি, তা হলে সুযোগও আসতে পারে।


প্রশ্ন: সিরিজে আপনাদের প্রত্যাশা কি। দলের সবাইকে কি কোন বার্তা দিয়েছেন?

মুশফিক: অনেকগুলো বার্তাই সবাইকে দেওয়া হয়েছে। তাদের কাছ থেকে অনেক ভালো ‘ফিডব্যাক’ পেয়েছি এবং কালকে (মঙ্গলবার) থেকে তার প্রতিফলন দেখবেন।

প্রশ্ন: শেষ সিরিজটা ভালো হয়নি। এই সিরিজ থেকে কি ধরণের ফল আশা করছেন?

মুশফিক: আমাদেরকে পূনরায় ভালো মতো একতাবদ্ধ হওয়া দরকার। এরপরে ম্যাচ ধরে ধরে যেতে হবে। আমার মনে হয় টি-টোয়েন্টিতে এখনো আমরা শক্তিশালী দল হয়ে উঠতে পারিনি। আমরা এখন খেলা শিখছি। যদিও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ অনেক ভালো হয়েছে। পেসবোলারা যদি জায়গায় বল করতে পারে এবং ভালো শুরু এনে দিতে পারে। আমার মনে হয় এখানে একটা সুবিধা হবে।

প্রশ্ন: ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে খুবই ভালো খেলেছে। একটা ফর্মে থাকা দলের বিপক্ষে খেলা কেমন হতে পারে?

মুশফিক: ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের যে দলটা খেলেছে সেই দল মোটামুটি শক্তিশালী ছিলো। তাদের মাঠে খেলে ভালো না করলে তাদেরকে হারানো সম্ভব না। প্র্যাকটিস ম্যাচ দেখে একটা দলের শক্তির বিচার করা যায় না। আমাদের সে রকম কোন বোলারও ছিলো না যারা প্রস্তুতি ম্যাচে খেলছে। ফতুল্লা এবং মিরপুরের উইকেটও সম্পূর্ণ ভিন্ন। মিরপুরে স্পিনাররা যদি ভালো বল করে সঙ্গে পেস বোলাররা যদি ভালো করে। আশা করি অন্যরকম খেলা হবে।

প্রশ্ন: খেলায় তো নতুন নিয়ম চালু হচ্ছে। পরিবর্তিত নিয়মের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া কতটা চ্যালেঞ্জ?

মুশফিক: চেষ্টা করছি খাপ খাইয়ে নেওয়ার। বিসিবি কাপে খেলেছি। আশা করছি যত তাড়াতারি সম্ভব খাপ খাইয়ে নেবো।

প্রশ্ন: আপনার দল কতটা ব্যালেন্স?

মুশফিক: আমার মনে হয় যে ১৪ জন আছে তারা এই সময়ের সেরা। খুবই ভারসাম্য একটি দল। অনেক অলরাউন্ডার আছে, পেস বোলার আছে, ব্যাটসম্যান আছে এবং অনেক স্পিন অলরাউন্ডার আছে। প্রস্তুতিও অনেক ভালো হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রে গিয়ে যদি পারফর্ম করতে না পারি। এগুলোর কোন মূল্য থাকবে না। কথা কথাই থেকে যাবে।

প্রশ্ন: টি-টোয়েন্টির গুরুত্ব কতটা। গুরুত্ব অনুযায়ী বেশি ম্যাচ খেলা প্রয়োজন মনে করছেন কি না?

মুশফিক: আইপিএল এবং বিগ ব্যাশ যেগুলো হয়, সেখানে আমাদের অনেকে খেলে না। আমরা শেষবার ২০০৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছি। মনে হয় দ্বিতীয় (আসলে হবে প্রথম) টি-টোয়েন্টি হবে। আমরা টেস্ট খুব কম খেলি বলে ১০ বছরে প্রত্যাশিত জায়গায় পৌঁছাতে পারিনি। আমার মনে হয় টি-টোয়েন্টিতেও ঘাটতি থেকে যাচ্ছে।

প্রশ্ন: সিরিজে ভালো খেলতে হলে কোন বিভাগকে দায়িত্ব নিতে হবে?

মুশফিক: সিরিজটা ভালো খেলতে হলে ব্যাটসম্যানদেরকে ৬০ ভাগ দায়িত্ব নিতে হবে। দেশের মাঠে বোলাররাই সবসময় ভালো ম্যাচ জেতায়। শেষ এক বছরে পেস বোলার রুবেল-শফিউল অনেক ভালো বল করছে। আমার মনে হয় ব্যাটসম্যানরা যদি একটু দায়িত্ব নেয়, বিশেষ করে টপ অর্ডার, মিডল অর্ডার এবং লোয়ার মিডল অর্ডার তিনটা বিভাগে ভালো করতে পারি। যদি বোলারদেরকে একটা ভালো লক্ষ্য দিতে পারি, ২৪০-২৫০ তা হলে ওয়ানডেতে প্রতিদ্বন্দ্বীতা ূর্ণ হবে।

প্রশ্ন: ওয়েস্ট ইন্ডিজের উপর চাপ তৈরি করা সম্ভব কি না। হলে কি ভাবে?

মুশফিক: একটা ম্যাচ ভালো খেলতে পারলে এবং শুরুটা ভালো করতে পারলে মনে হয় ওদের ওপর চাপ তৈরি করতে পারবো। যেটা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে করতে পেরেছিলাম। নিউজিল্যান্ডের ভালো প্রস্তুতি ছিলো। দলের ভারসাম্য ছিলো। কিন্তুআমরা প্রথম দিন থেকে ভালো খেলেছি। প্রথম ওয়ানডেটা জিতি নেওয়ার পর তাদের বিশ্বাসটা ওই ভাবে ছিলো না যে, আমাদেরকে হারাতে পারবে। আমার মনে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেও একই। আমরা যদি টি-টোয়েন্টি দিয়ে সেটা করতে পারি। তাহলে তাদের দলের ভেতরে যে সমন্বয় আছে, সেটা হয়তো পরের দিকে নাও থাকতে পারে। কালকের শুরুটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সবাইকে সেটা বলা আছে, আমার মনে হয় কালকের খেলা ভালো হবে।
Reply With Quote