View Single Post
  #263  
Old April 26, 2012, 10:05 AM
roman's Avatar
roman roman is online now
Cricket Guru
 
Join Date: July 18, 2004
Location: New York
Favorite Player: Shakib, Tamim, Mash
Posts: 10,942

http://www.banglanews24.com/detailsn...26042012107358


নিরাপত্তা পেলে পৃথিবীর সর্বত্র খেলতে রাজি: মুশফিকুর


স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্ট ফোর.কম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্ট ফোর.কম


ঢাকা: এশিয়া কাপের সাফল্য এবং বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে ইএসপিএন স্টারকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। তার এই সাক্ষাতকারটির চুম্বক অংশগুলো বাংলানিউজে তুলে ধরা হলো...

প্রশ্ন: এশিয়া কাপে দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ, কি বলবেন?

রহিম: আসলে আমাদের প্রত্যাশার বাইরে ছিলো। তারপরও প্রতিযোগিতার ফাইনালে খেলতে পারা ছিলো খুবই আনন্দের। আসলে প্রতিটি খেলাকে আমরা আলাদা করে নিতে চেয়েছি। আমরা ছাড়াও প্রতিযোগিতায় খেলেছে বিশ্বের সেরা তিনটি দল। যেখানে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারতও ছিলো। ভারত ও শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ফাইনালে খেলা অনেক বড় অর্জন।

প্রশ্ন: দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে ধবলধোলাই, এশিয়া কাপের ফাইনাল ছাড়াও অনেক সাফল্য আছে। তারপরও বাংলাদেশকে আন্ডারডগ হিসেবে বিবেচনা করা কি আপনাকে কষ্ট দেয়?

রহিম: হ্যাঁ, এটা কষ্টদায়ক। কিন্তু এটাও সত্য যে, আমরা এখনো নিজেদের সেরাটা দিতে পারিনি। এক সিরিজে ভালো খেললে পরেরটিতে দুর্বল পারফর্ম করি। আমাদেরকে ধারাবাহিক ভালো খেলতে হবে। তাহলে বড় দলগুলো সমীহ করবে। শুধু ভালো খেললে হবে না ধারাবাহিক ভালো খেলতে হবে।

প্রশ্ন: এটা করা উচিৎ। কারণ আপনাদের দলটা খুবই ভালো। তরুণ এবং অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের মিশেল।

রহিম: আমাদের যোগ্যতা আছে। দলে চামৎকার ভারসাম্য আছে। মাশরাফি বিন মর্তুজা, সাকিব আল হাসান এবং তামিম ইকবালের মতো পরীক্ষিত খেলোয়াড় আছে। এশিয়া কাপে মর্তুজা ফিরে আসায় খুবই ভালো হয়েছে। তরুণ ব্যাটসম্যান হিসেবে জহরুল ইসলামও ভালো করেছে। আব্দুর রাজ্জাকের মতো প্রতিভাবান বাঁহাতি স্পিনার আছে। আমি আমার সতীর্থদের নিয়ে খুবই খুশি।

প্রশ্ন: ভারত অধিনায়ককে তার দলের সিনিয়রদের মানিয়ে চলতে সমস্যায় পড়ছে। সেখানে আপনি সিনিয়রদের সঙ্গে চমৎকার সম্পর্কের কথা বলছেন।

রহিম: সে জন্যই আমরা একটা পেশাদার দল। আমরা একে অপরকে দীর্ঘদিন চিনি। তামিম ও সাকিবের সঙ্গে জুনিয়র লেভেলে খেলেছি। এসব কিছুই আমাদেরকে একটি পরিবারের মতো হতে সাহায্য করছে। সবচেয়ে বড় জিনিস হলো আমরা দেশের জন্য খেলি। দেশকে নিয়ে খুবই গর্ব করি। অভিজ্ঞ খেলোয়াড়রা আমাকে সহায়তা করে। এটা শুধু আমার বেলাতেই নয়, সাকিব যখন অধিনায়ক ছিলো তাকেও একই ভাবে সহযোগিতা করা হতো। দলের মনোবল খুবই চমৎকার।

প্রশ্ন: এশিয়া কাপে ভালো খেলা সত্ত্বেও, একটি ভালো দল হয়েও বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট খেলার সুযোগ কম পাওয়া নিশ্চয়ই হতাশা কাজ করে?

রহিম: টেস্ট ক্রিকেটই আসল। বেশি বেশি খেললে ভালো কিছু পাওয়া যাবে। অনেক জায়গা আছে যেখানে আমাদেরকে কাজ করতে হবে। আমারা ক্যাচ ফেলি এবং একই সঙ্গে ব্যাটিং ও বোলিংয়ে ভালো করতে পারিনা। এটাই টেস্ট ক্রিকেটে আমাদের নিচের দিকে রাখে। প্রতি দুই মাস অন্তর অন্তর আমাদেরকে টেস্ট খেলতে হবে। একদিনে তিনটি সেশন খেলতে হয়। আমাদের শিখতে হবে কিভাবে প্রতিটি সেশন ভালো খেলা যায়। দুঃখজনক হলো আমরা নিয়মিত টেস্ট খেলার সুযোগ পাই না।

প্রশ্ন: আপনাদের প্রতিবেশি ভারত, শ্রীলঙ্কা এবং পাকিস্তানের কাছ থেকেও সহযোগিতা পাচ্ছেন না। তারা বাংলাদেশের সাথে টেস্ট খেলতে খুব একটা আগ্রহও দেখায় না?

রহিম: ভারতের আচরণে আমি হতাশ। প্রায় ১২ বছর হলো আমরা টেস্ট স্ট্যাটাস পেয়েছি। অথচ এখনো ভারত আমাদের একটি টেস্ট সিরিজ খেলার জন্যও আমন্ত্রণ জানায়নি। আমরা যদি বড় দলগুলোর সঙ্গে খেলতে না পারি তাহলে উন্নতি করার জন্য তেমন সুযোগ তৈরি হবে না। ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে টেস্ট খেলতে পারলে খুবই ভালো হতো।

প্রশ্ন: এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকাও বাংলাদেশের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে। যা অবশ্যই কষ্ট দিয়েছে?

রহিম: এটাও খুব হতাশাজনক। বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টির আগে আমাদের কোনো ম্যাচ নাই। তাই আমরা প্রোটিয়াসদের সঙ্গে খেলার জন্য অধীর আগ্রহে তাকিয়ে ছিলাম। এতোদিন ক্রিকেটের বাইরে থাকলে আমরা ছন্দ হারিয়ে ফেলতে পারি। এশিয়া কাপে ভালো খেলার পর হঠাৎ আমাদের কোনো সিরিজ নেই। যাই হোক, দক্ষিণ আফ্রিকার না আসার সিদ্ধান্ত একান্তই তাদের। তবে আমি নিশ্চিত বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টি নিয়ে তাদের কোনো পরিকল্পনা আছে , যা আমাদেরও আছে।

প্রশ্ন: পাকিস্তান সফর করলে আপনাদের ভালো প্রস্তুতি হতো। এশিয়া কাপে দুবারই তাদেরকে হারানোর খুব কাছে চলে গিয়েছিলেন। তবে সফরটি মনে হয় হচ্ছে না?

রহিম: পাকিস্তানে কিছু সমস্যা আছে যার ফলে অনিশ্চয়তায় মুখে পড়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলকে (আইসিসি) একটি ভালো সিদ্ধান্ত খুঁজে বের করতে হবে। তবে একজন খেলোয়াড় হিসেবে পৃথিবীর যেকোনো জায়গায়ই আমরা খেলতে যেতে চাইবো। আমরা ঘরে বসে থাকছি না, আমরা যেকোনো জায়গায় যেতে রাজি। কিন্তু আমাদের পরিবার নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত। আমরা যেখানেই যাবো সেখানে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

__________________
The mind is like a parachute, it only works when open.....Thomas Dewey
Reply With Quote