facebook Twitter RSS Feed YouTube StumbleUpon

Home | Forum | Chat | Tours | Articles | Pictures | News | Tools | History | Tourism | Search

 
 


Go Back   BanglaCricket Forum > Miscellaneous > Forget Cricket

Forget Cricket Talk about anything [within Board Rules, of course :) ]

Reply
 
Thread Tools Display Modes
  #1  
Old April 13, 2012, 07:01 AM
BANFAN's Avatar
BANFAN BANFAN is offline
Cricket Sage
 
Join Date: March 26, 2007
Favorite Player: Shak-Ash-Tam
Posts: 16,689
Default How Did You Celebrate নববর্ষ !!

Quote:
Shubho Nobo Borsho .....

Someone in Dhaka told me, she is in big trouble during Nobo Borsho.. Since her Kajer Bua has gone out dating her bf and caretaker out with GF.... And they all had to be given new clothes on the eve of new year... If these aren't fulfilled they won't work..... Has BD gone so far in celebrating 'Nobo Borsho'? I feel like beng massively out dated .... Hearing the description of it's celebration in Bangladesh.

[Quoted From Another Thread]
I'm curious to know from the friends who are in Bangladesh celebrating Bangla New year, how you have celebrated the new year or planned to. How the new year affects your life. How deep rooted the celebration goes into the social fabric of common bangladeshis. Does every one celebrate in more or less the same way? Do you like the way it's celebrated? Why and why not?

I mean every point of view can make the picture of celebration more vivid. I'm only away for 8 years though, has it gone through such massive changes as I get a picture talking to some friends??

Well, I'm not against the celebration at all, and we used celebrate too, but that was I guess limited to very few event and very few people, mainly limited to a small segment of the people in major cities.... Looks like it has gone quiet wide now... Well the expats celebrate too with some khana piña, get together and possibly some cultural functions...
__________________
I'm with Shahbag for fair punishment of all war criminals. Im with Shahbag to stand for fair trials of all Corruption, all murders and social injustices occurred over last 40 years. I'm for a secular, corruption free & Just society in Bangladesh. Spirit of '71

Last edited by BANFAN; April 14, 2012 at 08:30 AM..
Reply With Quote
  #2  
Old April 13, 2012, 08:06 AM
BengaliPagol's Avatar
BengaliPagol BengaliPagol is offline
Cricket Legend
 
Join Date: February 4, 2012
Location: Wagga Wagga, NSW
Favorite Player: Gareth Bale
Posts: 5,020

Quote:
Originally Posted by BANFAN
I'm curious to know from the friends who are in Bangladesh celebrating Bangla New year, how you have celebrated the new year or planned to. How the new year affects your life. How deep rooted the celebration goes into the social fabric of common bangladeshis. Does every one celebrate in more or less the same way? Do you like the way it's celebrated? Why and why not?

I mean every point of view can make the picture of celebration more vivid. I'm only away for 8 years though, has it gone through such massive changes as I get a picture talking to some friends??

Well, I'm not against the celebration at all, and we used celebrate too, but that was I guess limited to very few event and very few people, mainly limited to a small segment of the people in major cities.... Looks like it has gone quiet wide now... Well the expats celebrate too with some khana piña, get together and possibly some cultural functions...
I dont live in Bangladesh but there is always a huge mela where practically the whole population of Bangladeshis living in Sydney come out and celebrate Bangla New Year. Its good fun.

Posted via BC Mobile Edition (Opera Mobile)
Reply With Quote
  #3  
Old April 13, 2012, 08:32 AM
zsayeed zsayeed is offline
Cricket Legend
 
Join Date: April 19, 2007
Posts: 4,898

Can some one get this? and post the Cricket part?
__________________
I Want to Believe
Reply With Quote
  #4  
Old April 13, 2012, 10:10 PM
Navo's Avatar
Navo Navo is offline
Moderator
BC Editorial Team
 
Join Date: April 3, 2011
Location: Dhaka
Favorite Player: Shakib, M. Waugh, Bevan
Posts: 3,441

I've lived abroad most of my life but my family always celebrates Pohela Boishakh. Tomorrow we're having quite a few people coming over for lunch and we'll be having ilish mach-panta bhat and also kichuri and bhuna gosh
__________________
thebarnecessities.wordpress.com
Reply With Quote
  #5  
Old April 14, 2012, 12:40 AM
WorldCup11's Avatar
WorldCup11 WorldCup11 is offline
Test Cricketer
 
Join Date: November 24, 2010
Posts: 1,587



Quote:
Source : http://www.banglanews24.com

বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, চারুকলা অনুষদ ও রমনাসহ গোটা এলাকায় উত্সব আনন্দে মেতে উঠতে বিদেশি নারীরাও বৈশাখী শাড়ি পড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।
__________________
We were, we are and we will be always with you Tigers.
Reply With Quote
  #6  
Old April 14, 2012, 01:42 AM
idrinkh2O's Avatar
idrinkh2O idrinkh2O is offline
Test Cricketer
 
Join Date: April 9, 2011
Favorite Player: Performing Tigers
Posts: 1,869

পহেলা বৈশাখে পান্তা-ইলিশ শহুরে বাঙালির আবিষ্কার
By bastob, on এপ্রিল 15th, 2010

সূত্র:সাম্প্রতিকক লে পান্তা-ইলিশ পহেলা বৈশাখের উত্সবের প্রধান অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। এ নিয়ে এখন শহুরে নব্যধনিক ও উচ্চমধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষের মাতামাতির শেষ নেই। ফলে পহেলা বৈশাখের দিন এখন শহরের অলিগলি, রাজপথ, পার্ক, রেস্তোরাঁ—সর্বত্ ই বিক্রি হয় পান্তা-ইলিশ। এমনকি এখন অভিজাত হোটেলগুলোতেও শুরু হয়েছে পান্তা-ইলিশ বিক্রি এবং এই পান্তা-ইলিশ খাওয়া এখন একশ্রেণীর মানুষের বিলাসিতায় পরিণত হয়েছে। কিন্তু আবহমানকাল থেকেই পহেলা বৈশাখের সঙ্গে এই পান্তা-ইলিশের কোনো সম্পর্ক নেই। এটা শহুরে নব্য বাঙালিদের আবিষ্কার। এর মাধ্যমে আমাদের সংস্কৃতিকে সম্মান জানানোর পরিবর্তে ব্যঙ্গ করা হচ্ছে এবং এর মাধ্যমে আমাদের সংস্কৃতি হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশের বরেণ্য বুদ্ধিজীবী, প্রাবন্ধিক, সাংবাদিক এবং সাহিত্যিকরা। তারা বলেছেন, পহেলা বৈশাখে গ্রামের মানুষ ইলিশ মাছ কিনে পান্তাভাত তৈরি করে খায়, এমনটা আমরা কখনও দেখিনি এবং শুনিনি। শহরের যেসব ধনী লোক পহেলা বৈশাখে পান্তা-ইলিশ খায় তারা কৃষকের জীবনযাত্রা দেখেনি এবং গ্রামের সংস্কৃতি সম্বন্ধে তাদের সঠিক কোনো ধারণা নেই। বিশিষ্ট ব্যক্তিরা বলেন, পহেলা বৈশাখের উত্সবে গ্রামের অবস্থাপন্ন এবং ধনী পরিবারে খাবারের আয়োজনের মধ্যে থাকতচিড়া, মুড়ি, সাধারণ খই, বিন্নি ধানের খই, দই, খেজুরের গুড়, খিচুড়ি, বড় কই মাছ, বড় রুই মাছ ইত্যাদি। সকালবেলা নাশতার আয়োজনে থাকত চিড়া, মুড়ি, খই, দই, খেজুর গুড় ইত্যাদি। আর দুপুরবেলা থাকত খিচুড়ি এবং বড় কই ভাজা, বড় রুই মাছের পেটি ভাজা, বড় পুঁটি মাছ ভাজা এবং বিভিন্ন ধরনের ভাজি। রাতেও এসব খাবার খাওয়া হতো। কিন্তু গ্রামের গরিব সাধারণ পরিবারের এ ধরনের আয়োজন হতো না। তবে তারাও সাধ্যমত উত্সব আয়োজনে মেতে উঠত। পহেলা বৈশাখের উত্সব আয়োজন বিষয়ে প্রবীণ সংবাদিক, বিশিষ্ট সাহিত্যিক এবং ছড়াকার ফয়েজ আহ্মদ বলেন, পহেলা বৈশাখের সঙ্গে পান্তা-ইলিশের কোনো সম্পর্ক নেই। এটা কোনো গরিব মানুষের খাবার নয়। গ্রামের মানুষ ইলিশ মাছ কিনে পান্তাভাত তৈরি করে খায়, এটা আমি গ্রামে কখনও দেখিনি, শুনিনি। শহরের যেসব ধনী লোক বর্তমান সময়ে পহেলা বৈশাখে পান্তা-ইলিশ খায় তারা কৃষকের জীবনযাত্রা দেখেনি এবং গ্রামের সংস্কৃতি বিষয়ে তাদের সঠিক কোনো ধারণা নেই। তারা এখন পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে পান্তা-ইলিশ খাচ্ছে এবং একশ্রেণীর মানুষ এটা বিক্রি করে লাখ লাখ টাকার ব্যবসা করছে। ছোটবেলায় আমাদের বাড়িতে পহেলা বৈশাখে নানা ধরনের আয়োজন করা হতো এবং বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়-স্বজনকে দাওয়াত দিয়ে খাওয়ানো হতো। পহেলা বৈশাখের দিনের আয়োজনের মধ্যে থাকত চিড়া, মুড়ি, সাধারণ খই, বিন্নি ধানের খই, দই, ছানার সন্দেশ, খিচুড়ি, বড় কই মাছ, বড় রুই মাছ ইত্যাদি। সকালবেলা নাশতার আয়োজনে থাকত চিড়া, মুড়ি, খই, দই, খেজুরের গুড় ইত্যাদি। আর দুপুরবেলা থাকত খিচুড়ি এবং বড় কই ভাজা, বড় রুই মাছের পেটি ভাজা, বড় পুঁটি মাছ ভাজা এবং বিভিন্ন ধরনের ভাজি। রাতেও এসব খাবার খাওয়া হতো। পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে তখন রসগোল্লা এবং পানতোয়া তেমন একটা খেত না কেউ। তবে ছানার তৈরি সন্দেশ খাওয়ার রীতি ছিল। গ্রামের অবস্থাপন্ন এবং ধনী পরিবারে পহেলা বৈশাখে এসব খাবারের আয়োজন করা হতো। কিন্তু আমাদের এলাকা বিক্রমপুরের শ্রীনগর এলাকায় গরিব সাধারণ হিন্দু-মুসলমান পরিবারে এ ধরনের আয়োজন হতো না।

আমাদের এলাকায় তখন ১০-১২টি বাজার বসত এবং সেখানে মাঝে মাঝে ইলিশ মাছও পাওয়া যেত—কেনার জন্য ভিড়ও যথেষ্ট হতো। তবে আমরা কখনও শুনিনি কেউ তখন পান্তা-ইলিশ দিয়ে পহেলা বৈশাখ শুরু করেছে। আর তখন গরিব মানুষের দুই টাকা দিয়ে একটি ইলিশ মাছ কিনে বিলাসিতা করার সুযোগ ছিল কম। তবে পহেলা বৈশাখে উত্সব হতো এতে কোনো সন্দেহ নেই। তখন পহেলা বৈশাখে বিক্রমপুরে ১০টি বাজারে মেলা বসত। মেলায় হাঁড়ি-পাতিল, লোহার ছুরি ও দা, বাচ্চাদের খেলনা, ঘুড়ি, বার্ষিক উত্পাদিত ফসল ইত্যাদি বিক্রি হতো। শ্রীনগরের মেলা ছিল অন্যতম। শ্রীনগরকে ঘিরে একটি উত্সব রচিত হতো। এ মেলার বড় আকর্ষণ ছিল দুটি। সকালে শখের ক্রয়টাই ছিল প্রধান, আর বিকালে ঘোড়দৌড়। শ্রীনগর থেকে ১০ মাইল পর্যন্ত রাস্তায় ঘোড়দৌর হতো। আর শতাধিক বর্ণিল ঘুড়ি উড়ত আকাশে। আমরা যে কেউ সেই ঘুড়ি প্রতিযোগিতায় যোগ দিতে পারতাম। ঘুড়ি কাটাকাটি ছিল উত্সবের প্রধান দিক। আর বাচ্চাদের খেলনা ক্রয়ের মধ্যে ছিল বিশেষ বৈশিষ্ট্যপূর্ণ পুতুল ‘আল্লাদি’। প্রায় সবাই কিনত এ পুতুল। সন্ধ্যা পর্যন্ত ঘোরদৌড় চলত এবং প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থান অধিকারীকে পুরস্কারও দেয়া হতো।

প্রখ্যাত প্রাবন্ধিক, সমাজ রূপান্তর অধ্যয়ন কেন্দ্রের সভাপতি, ত্রৈমাসিক নতুন দিগন্ত সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, পান্তাভাত গরিব মানুষের খাবার। রাতে খাওয়ার পর অবশিষ্ট ভাত রাখার কোনো উপায় ছিল না, তাই পানি দিয়ে রাখা হতো এবং সকালে আলুভর্তা, পোড়া শুকনা মরিচ ইত্যাদি দিয়ে খাওয়া হতো। আমি ছোটবেলায় খেয়েছি। কিন্তু এখন পান্তা-ইলিশ ধনীলোকের বিলাসিতায় পরিণত হয়েছে এবং এটা দুর্মূল্যও বটে, যা সাধারণ মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে। এর মাধ্যমে আমাদের সংস্কৃতিকে সম্মান দেখানোর পরিবর্তে ব্যঙ্গ করা হচ্ছে। পান্তাভাত একদিন নয়, সারা বছরই খাওয়া যেতে পারে। তিনি বলেন, আমাদের ছোটবেলায় পহেলা বৈশাখে পান্তা-ইলিশ খাওয়ার প্রচলন ছিল না। আমরা চৈত্রসংক্রান্তির মেলায় যেতাম এবং বিভিন্ন ধরনের খেলনা কিনতাম। পহেলা বৈশাখে হালখাতার অনুষ্ঠানে যেতাম। তখন এসব অনুষ্ঠান ছিল স্বতঃস্ফূর্ত। এর মধ্যে কোনো বাণিজ্যিকতা ছিল না। কিন্তু এখানে বৈশাখী অনুষ্ঠানে বাণিজ্যিকতা ঢুকেছে এবং বৈষম্যের সৃষ্টির মাধ্যমে বড়লোকের অনুষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।

বিশিষ্ট ঐতিহাসিক এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম বলেন, মোগল সম্রাট আকবরের সময়ে বাংলা সন শুরু হওয়ার পর থেকে পহেলা বৈশাখে জমিদাররা খাজনা সংগ্রহ করত। যারা খাজনা দিতে আসত জমিদাররা তাদের মিষ্টি, পান ইত্যাদি দিয়ে আপ্যায়ন করত। এরই ধারাবাহিকতায় একসময় জমিদারবাড়িতে মেলার আয়োজন শুরু হয় এবং মাসব্যাপী চলত এসব মেলা। একপর্যায়ে এই মেলার সঙ্গে বিভিন্ন দেবদেবীকে যুক্ত করা হয়। কারণ তখন অধিকাংশ জমিদার হিন্দু হওয়ায় সামাজিক অনুষ্ঠানের সঙ্গে ধর্ম যুক্ত হয়। বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার ও সাহিত্যিক আমজাদ হোসেন বলেন, পহেলা বৈশাখে ইলিশ-পান্তার কালচার একদমই নতুন প্রজন্মের। যারা শালিধান কিংবা জলমুকুট ধানের নাম জানে না, যারা এই শহরের হাসপাতালে জন্মেছে, বড় হয়েছে কবুতরের খুপরির মতো একটা রুমে, আমাদের শেকড়ের কথা যারা জানে না, যারা এই ঢাকা শহরের তরুণ নাগরিক, ইরি ধানের আমলে তারাই পান্তা-ইলিশ নিয়ে—নগরের রাস্তায় রাস্তায় পান্তা-ইলিশ কালচার নিয়ে ব্যস্ত থাকে।

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ বলেন, আজকাল আমরা পহেলা বৈশাখের দিন পান্তাভাতের আয়োজন করি। পান্তাভাত নিয়ে বাড়াবাড়ি কম হচ্ছে না। কবে কোন ফাইভস্টার হোটেল বলে ফেলবে, আমাদের কাছে পাওয়া যাবে স্ট্রবেরি ফ্লেভারড পান্তা—আমি সেই অপেক্ষায় আছি। এভাবে আমাদের সংস্কৃতি হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে।
__________________
-- Alwayz with !!! Champions are made from something they have deep inside them - a desire, a dream, and a vision!
-- Bangladesh are the Runners-up in the 2012 ASIA Cup!
Reply With Quote
  #7  
Old April 14, 2012, 02:43 AM
Isnaad's Avatar
Isnaad Isnaad is offline
Cricket Legend
 
Join Date: January 18, 2008
Location: Dhaka Cantonment
Favorite Player: 75 69 29
Posts: 5,175

I don't think Islam forbids the celebration of Pahela Boishakh or any other New Year as long as none of the acts contradict with Islam.
...
That being said, I do think some of the acts(in fact, many) carried out during Pahela Boishakh all around Bangladesh are contradictory to Islam.
__________________
"And be true to every promise- for, verily you will be called to account for every promise which you have made." - [Al Qur'an - 17:34]
Reply With Quote
  #8  
Old April 14, 2012, 03:51 AM
ahnaf's Avatar
ahnaf ahnaf is offline
Cricket Legend
 
Join Date: May 31, 2010
Location: Dhaka,BD
Favorite Player: Tamim,Ash,Mash,Shakib
Posts: 3,010

The only thing i love during pohela boishak is Mongol Jatra.. Such a beautiful and organised rally... I doubt any other country have anything like this..

Posted via BC Mobile Edition (Opera Mobile)
Reply With Quote
  #9  
Old April 19, 2012, 01:28 PM
BANFAN's Avatar
BANFAN BANFAN is offline
Cricket Sage
 
Join Date: March 26, 2007
Favorite Player: Shak-Ash-Tam
Posts: 16,689

Quote:
Originally Posted by idrinkh2O
পহেলা বৈশাখে পান্তা-ইলিশ শহুরে বাঙালির আবিষ্কার
By bastob, on এপ্রিল 15th, 2010
...........

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ বলেন, আজকাল আমরা পহেলা বৈশাখের দিন পান্তাভাতের আয়োজন করি। পান্তাভাত নিয়ে বাড়াবাড়ি কম হচ্ছে না। কবে কোন ফাইভস্টার হোটেল বলে ফেলবে, আমাদের কাছে পাওয়া যাবে স্ট্রবেরি ফ্লেভারড পান্তা—আমি সেই অপেক্ষায় আছি। এভাবে আমাদের সংস্কৃতি হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে।
talking about Panta bhat, wanted to share a poem released on the eve on Nobo Borsho :

চল চল চল
উর্ধ মহলে চোরের দল
খাটিয়ে প্রভাব খাটিয়ে বল
দেশের বারোটা বাজিয়ে চল
চলরে চলরে চল। ।

...নিজের কপালে হানি আঘাত
জনতা খাইবে পান্তা ভাত
আখের গোছায় নেতার হাত
দেশ সেবা তো ছল
চলরে চলরে চল।

গরিবের লাগিয়া গাহিয়া গান
গ্রামকে বানাবো মহাশ্মশান
যুবদের চরিত্র করিব দুর্বল
চল চল চল।

....


Received from a friend.
__________________
I'm with Shahbag for fair punishment of all war criminals. Im with Shahbag to stand for fair trials of all Corruption, all murders and social injustices occurred over last 40 years. I'm for a secular, corruption free & Just society in Bangladesh. Spirit of '71
Reply With Quote
Reply

Bookmarks


Currently Active Users Viewing This Thread: 1 (0 members and 1 guests)
 
Thread Tools
Display Modes

Posting Rules
You may not post new threads
You may not post replies
You may not post attachments
You may not edit your posts

BB code is On
Smilies are On
[IMG] code is On
HTML code is On



All times are GMT -5. The time now is 07:26 PM.


Powered by vBulletin® Version 3.8.7
Copyright ©2000 - 2014, vBulletin Solutions, Inc.
BanglaCricket.com
 

About Us | Contact Us | Privacy Policy | Partner Sites | Useful Links | Banners |

© BanglaCricket